রুমা ঢ্যাং অধিকারী

শব্দের মিছিল

■ সিমেন্ট জ্বর


চারিদিক দিয়ে ঘিরে ধরার এই অরণ্য বিস্তৃতি​ ​
বাঁশবনে পড়ে থাকা তার রাত

আমার স্বর্ণব্যবচ্ছেদে না ঘটা কোনো অঘটন​
​হাঁটুর ওপর নীলতাপ্পি দিতে মশগুল
হাল্কা করে জমিয়ে রাখি বারো ইঞ্চি বিধুর জ্যোৎস্না

এ চোখ দেখেছে আগুন কামড়ে কেমন বেড়ে উঠেছে সিমেন্ট জ্বর
তাদের মলাটে লেখা সুখচর লাইন
অথচ স্রোতের পিঠে মরাই ভাঙে রোজ
বিছানায় শুয়ে সেসব ভুলে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা গুনি

মনেতে আজ অনেক ছায়া ল্যামিনেশন হয়ে​ ​
আর জাঁতাকলে একটি দেহ পিষ্ঠ


■ স্ট্যারি নাইটহুড

একটা উন্মুক্ত সংযমের নাম অপেক্ষা
পিপাসার ভুঁড়িচ্ছেদে আজ বুঝি যা মনে হয় ধূসর​
আটকে পড়ে আছি আড়ষ্ট এই অনন্ত মায়ায়
আটকে পড়ে ধুলোবৃত্তের ভিক্ষুকাশ্রম​

এইভাবে বছর ঠুকরে ঠুকরে বেজে উঠছে 
সাড়ে সাতটার ঘুঙুর​
তবু বানজারা দরজা স্বাগত জানায় যাকে
তিনি খেঁদো নাকের মানুষ। আর পোড়া রুটির বৈচিত্র্যে দাঁড়িয়ে থাকা​ এক কড়া রোদশোষা পোস্টম্যান

গ্যালাক্সির পতপতে নিশানায় রোজ পাই আহারের বাস্তুবিলাস, এবং
নিশ্চিন্তিপুরের স্ট্যারি নাইটহুড

সন্ধের এলেমে কৃত্রিমতার ফাঁস বুনে রাখা আল দিয়ে
সে চলে যায় ফেরিঘাটে

ক্রমশ গুটিয়ে আসে পৃথিবীর গিঁট










একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সুচিন্তিত মতামত দিন

নবীনতর পূর্বতন