x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

শুক্রবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

সুজাতা_দে

sobdermichil | ডিসেম্বর ২৫, ২০২০ | | মিছিলে স্বাগত
সুজাতা_দে

■ বন্ধু_থাকো_ওদের_সাথে

সুজাতা_দে

বড় হবার সেসব দিনে​
বলতে চেয়েও হয়নি বলা
অনেক কথা গোপন ঢাকা;
শ্রদ্ধা রেখে যায় না চলা।

সব কথা কি সবার মাঝে​
যায় গো বলা সবখানেতে
বলতে আছে যা সব কিছু
ঘটে গেছে অলক্ষ্যেতে।

কিশোর থেকে পুরুষ পথে​
নির্জন স্নান ছাদের কলে
জ্যাঠতুতো দি মেলতে কাপড়
গামছাতে টান মজার ছলে।

মেলার ভীড়ে পুতুল কিনে
পাড়ার দেবু-কা ফিরতি পথে
লাগায় ব্যথা কিশোরী বুকে
শ্রদ্ধা চড়ে ঘেন্না রথে।

এই মাসিটা খুবই বাজে
অফিসফেরত মা ক্ষেপে যায়;
কেমন করে মাকে বলি..
তোমার 'সোনা'-র ঘন্টা বাজায়।

পুরুষ টীচার চাই না বাপি
মা মরা মেয়ে- ঘর যে খালি;
হয়নি বলা বাবাকে আর..
দিয়েছে গোপন অঙ্গ জ্বালি।

এমন আরো গোপন কথা
কিশোর বুকের ক্ষতস্থানে
আজীবন বইছে ব্যথা​
সেই কিশোরী একাই জানে।

অভিভাবক সজাগ থাকো
প্রলেপ দেবার চেয়ে ভালো
শিশু-কিশোর বন্ধু হলে
মুছবে এমন যতো কালো।

Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.