x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বুধবার, অক্টোবর ২১, ২০২০

নিশিকান্ত রায়

sobdermichil | অক্টোবর ২১, ২০২০ | | মিছিলে স্বাগত
দেবতার  মায়াবী খেলায়​

■ দেবতার 
মায়াবী খেলায়

পাথরেও আগুন ছিল এখন সেও নদী​
প্রশ্ন করেছি তাঁকেও।​
তাঁর বুকে মাথা রেখে ঘুমিয়েছি।​
যেতে আসতে আলিঙ্গনে আলিঙ্গনে কেটেছে​
যৌবনের অনেকটুকুই।​
পাথর আমাকে ছুঁয়েছে ঠিকই কিন্তু বলেনি কিছুই।​
আমার সব কথা শুনেছে কিন্তু বলেনি কিছুই।​
আমার দগ্ধ বাড়ির ছাই ঢেউ তুলে​ নিয়ে গেছে নদী​
কিন্তু বলেনি কিছুই।
পাথর চুইয়ে আসা জলে জলে নদীর শরীর​
আমার গত জন্মের চিতাভস্মকেও নিয়ে গেছে দূরে।​ ​
ওই বন্দী জলের নির্বাক যৌবন অসহায় বয়ে যাচ্ছে।​
আমি জল নিয়েছি, মাটি নিয়েছি তার সাথে যা যা ইচ্ছে​
মিশিয়েছি আমার মনের মতোন -
তবুও রক্ষা হয়নি শেষটুকু।​
এখনও অবহেলা চারদিকে।​
অবিশ্বাসের কালো কাক ডেকে যায় রাতদিন।​
মানুষের পেট থেকে অমানুষ আজও বের হয়ে আসে।​
রোদ বৃষ্টি ঝড় জলোচ্ছ্বাস মহামারী এক নির্বোধ নগরের
সেপাই হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে।​
বৃন্তচ্যুত ফুলের উৎসবে আমাকে হারিয়ে ফেলি ।​
আমাকে আজও দেখতে পাই না আমি
এবং ভুলে যাই, আমি মানুষ না দেবতা!
আমার দুপারেই শূণ্যতা ভরা মাঠ।​
মানুষ ও অসুরের সংঘাতে সংঘাতে ঢেকে গেছে পথ।​
সভ্য অসভ্যের লড়াইয়ের মাঝখানে স্বর্গের ছায়ার মিছিল-
দাঁড়িয়ে থাকে চুপচাপ।​
বারবার বিপন্ন হয়ে যায়​ মানুষ।
পশু ও অসুরের পরম্পরা ফিরে ফিরে আসে লোকালয়ে।​
কতটুকু গদ্য পদ্য হাহাকার নিয়ে মানুষেরা পণ্যময় হয়ে যায় -
তার হিসেব থাকে দেবতার কাছে।​


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.