x

প্রকাশিত

​মহাকাল আর করোনাকাল পালতোলা নৌকায় চলেছে এনডেমিক থেকে এপিডেমিক হয়ে প্যানডেমিক বন্দরে। ওদিকে একাডেমিক জেটিতে অপেক্ষমান হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।​ ​দীর্ঘ সাতমাসের এ যাপন চিত্র মা দুর্গার চালচিত্রে স্থান পাবে কিনা জানি না ! তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানে-

​'চ'য়ে - চালা উড়ে গেছে আমফানে / চ'য়ে - কতদিন হাঁড়ি চড়েনি উনুনে / চ'য়ে - লক্ষ্মী হলো চঞ্চলা / চ'য়ে - ধর্ষিতা চাঁদমনির দেহ,রাতারাতি পুড়িয়ে ফেলা।

​হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষটি লালমার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ দেয় ক্যালেন্ডারের পাতায়, চোদ্দদিন যেন চোদ্দ বছর। হুটার বাজিয়ে শুনশান রাস্তায় ছুটে যায় পুলিশেরগাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স আর শববাহী অমর্ত্য রথ...। গঙ্গা দিয়ে বয়ে গেছে অনেকটা জল, 'পতিত পাবনী গঙ্গে' হয়েছেন অচ্ছুৎ!

এ কোন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

সমীরণ চক্রবর্তী

বুধবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০

কৃষ্ণা রায়

5 | সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
কৃষ্ণা রায়

 

হেমন্ত পারাবার

কতযুগ ধরে কেন যে চেয়েছি
গাঢ বসন্ত কাল ,​
খয়েরি পাতায় সুখেতে জড়ানো​
​প্রাচীন গাছের ডাল।​
​তৃষ্ণার চোখ চেটে চেটে খাবে​
গোধূলির মেটে আলো,​
নদীজল মাখে বিষাদের তাপ -
ভরা রাত্রির কালো।​

চেয়েছি যখন শীতের দুপুর​
ঘুঘু চরা বুনো ছায়ায়,​
হাওয়ায় ওড়ানো শুকনো রোদের
​কষ্ট মাখানো মায়ায়।
​চুমুকে চুমুকে দুঃখের স্রোত​
ওষ্ঠ করেছে পান​
ভুলতে চেযেও কেন ভুলে গেছে​
মধুমাস ভরা গান।​

জীবনে এখন পঞ্চম ঋতু
​প্রাচীন পাতারা ঝরে
​ঘরে ফিরে গেছে জলপাখি দল​
কোলাহল সারা করে।​
​ছাদের কিনারে অভিসার বেলা
​থমকে গেছে সে কবে​
গোধূলির আলো ক্ষীণ এক স্মৃতি​
ফেলে গেছে কিছু তবে?

ষষ্ঠ ঋতুটি অধরাই থাকে​
তারার আলোর বেশে
​কে যেন আসবে বলে চলে গেছে​
​পাতা ঝরা কাল শেষে।​
প্রতীক্ষা দিন গাঢ় থেকে গাঢ়​
অপরাহ্ণের পারে-​
​ অনন্ত -প্রেম , শুদ্ধ ভিখারি​
হেমন্ত- পারাবারে।



■ পরিচিতি
Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.