x

প্রকাশিত

​মহাকাল আর করোনাকাল পালতোলা নৌকায় চলেছে এনডেমিক থেকে এপিডেমিক হয়ে প্যানডেমিক বন্দরে। ওদিকে একাডেমিক জেটিতে অপেক্ষমান হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।​ ​দীর্ঘ সাতমাসের এ যাপন চিত্র মা দুর্গার চালচিত্রে স্থান পাবে কিনা জানি না ! তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানে-

​'চ'য়ে - চালা উড়ে গেছে আমফানে / চ'য়ে - কতদিন হাঁড়ি চড়েনি উনুনে / চ'য়ে - লক্ষ্মী হলো চঞ্চলা / চ'য়ে - ধর্ষিতা চাঁদমনির দেহ,রাতারাতি পুড়িয়ে ফেলা।

​হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষটি লালমার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ দেয় ক্যালেন্ডারের পাতায়, চোদ্দদিন যেন চোদ্দ বছর। হুটার বাজিয়ে শুনশান রাস্তায় ছুটে যায় পুলিশেরগাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স আর শববাহী অমর্ত্য রথ...। গঙ্গা দিয়ে বয়ে গেছে অনেকটা জল, 'পতিত পাবনী গঙ্গে' হয়েছেন অচ্ছুৎ!

এ কোন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

সমীরণ চক্রবর্তী

মঙ্গলবার, জুলাই ১৪, ২০২০

অনিকেত মহাপাত্র​

sobdermichil | জুলাই ১৪, ২০২০ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
পরিযায়ীর পৃথিবী​ ​

খোলা রাস্তা, হুশহাস গাড়ি, কোনো কাড়াকাড়ি​ নেই রাস্তায়, বেশ নিয়ম মেনে চলছে,​
চলছে সবকিছু​
খবর নেই লুটের​
ক্ষুধা আছে, তাও নিয়ন্ত্রিত​
পেটও আইন কানুন মানছে​
সংবিধানের নিরঙ্কুশ শাসন​
শান্তি ও মঙ্গলের অগ্রগামী ঘোড়া ।

ট্রয়ের বুকে শান্তির বার্তাবাহী ঘোড়া​
ভিতর থেকে আরও ভিতরে সিঁধোয়
মুখের ফেনায় মুক্তো ঝরে​
ভার বইতে বইতে পথ খনিজ ক্ষেত্র​
আকর আশা লতার​
এই সময়ের ঘোড়া ছুটে যায়​
গাদাগাদি করে জনা চল্লিশ,​
যুদ্ধ থেকে ফিরছে,​
ক্ষেত্র থেকে, অবরুদ্ধ হয়েছিল নগর,​
বহিঃশত্রু ঘিরে রেখেছে চারপাশে​
চর আসে, দিয়ে যায় রোগ​
কখনও আসে দূত, বাম হাতে দুষ্ট দন্ড​
সাদা পতাকা আর​ বড় ছুরি​
দুদিক খোলা​
জবরজং, তাপ্পিমারা আচ্ছাদনে,​
প্রতিশ্রুতির তাপ্পি, লোকরঞ্জন​

দর কষাকষি চলে সম্পদের​
কার পাওনা কত
কতোর চাল, কবে চাই​
কোথায়.....​
লেগ পিস কত বড় হবে !
গলা কি বাদ যাবে,​
আবশ্যক কিছু, কখনও কখনও​
অতি,​ বহুল, লগ্নকণ্ঠ​
আরও অবরোধ চলবে, ব্যারিকেড লাগানো
বাহুল্য কমাতে হয়, বরাদ্দে কাটছাঁট,​
জন সমুদ্রের বোঝা, অতিমারীতে​
বিপুল বোঝা l

ঘোড়া ফেলো জলে, রসদে টান​
পাড়ি দিতে হবে অনেক পথ,​
জাহাজের ভার কমাতে​
ফাঁকি দিতে অবরোধ,​
শল্যবিদ সু পরামর্শ সহ​
বাড়তিটুকু ছেঁটে, দরকারিকে বাঁচানো​
বাড়তি দলে দলে মানুষ নেমে পড়ে রাস্তায় ।
কো-ল্যাটারাল ড্যামেজ​
তৃষ্ণা, ক্ষুধা, মারী​
অসীম তৃষ্ণা, জীবন পিয়াস​
নিয়ে যায় স্বর্গের সিঁড়ি দেওয়া ক্রমাগত​
উঁচু থেকে উঁচু রাস্তায় ।
প্রমাদ গোনে আত্মজন,​
শয়তান ছুঁয়ে দূত আসছে মৃত্যুর​ ।

রাস্তা জুড়ে মৃত্যুর সহচরেরা​ হেঁটে যায়​
বাচ্চা কোলে, বোঁজকা পিঠে​
অবরুদ্ধ নগর তাড়ায়​
নিজেকে বাঁচাতে, আত্মজন​
নিশ্চিত মৃত্যুকে সামনে দেখে,​
হেঁটে আসছে রাস্তায় ।
Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.