চিন্ময় ঘোষ

চিন্ময় ঘোষ
স্বদেশ 

একদিন এ মাটির কোণাটুকু রক্তে ভিজেছিলো,
ঝড় না, ঝর্ণার উৎস মুখে সুখ ফুটে ছিলো
সে অবধি এ মাটির প্রতি কণা মিশে গেছে
ধমনীর স্রোতে, চেতনায় ভাস্বর মাতৃ মুখখানি।
মায়ের শরীর যদি জায়মান সৃষ্টিসুখে হাসে
স্বভাব চিহ্ন বলে, এ মাটি আমার স্বদেশ।
মাথায় উপরে ওই বিপুল আকাশ ছাদ ছাওয়া
সবুজের ব্যাপ্তি সয় জাতকের সঞ্চালিত ঘাত 
সতেজ হাওয়ায় ভাসে ভালোবাসা শান্তির ঘ্রাণ,
এমনই স্বদেশভূমি ধনধান্যপূর্ণ এ দেশ
কালান্তরে জেগে আছে মহানের পুণ্যভূমি হয়ে।

এখন আমার দেশ ডুব দেয় কালের গরলে,
অর্বাচীন অসুখের ঘোরে পাক খায় গোলকধাঁধায়,
বাতাবরণ রুদ্ধ তার -  বিষবাষ্প ঘা দেয় চিরায়ত  বিশ্বাসের মূলে,
লালচোখ পাহারায় প্রতিপল বাঁধা হয় শিকলে শিকলে।
আমার এ দেশ জুড়ে এমন এ দ্বেষ
কোন পাপে অকাতরে রক্ত ঝরায়!
ভাই ভাই নয়,নিঃশ্বাসের বিষে পোড়া কবন্ধ সদৃশ।

ক্রমশঃ রাত গাঢ় হলে
তুষের আগুনে জ্বলে ছাইচাপা রোষের বিলাপ,
ভয়ার্ত মানুষেরা যুথবদ্ধ হলে
গ্রন্থি ছিঁড়ে একদিন উদ্বাহু হবে, তখনই পোড়াবে যত অনুকৃত ইস্তাহার লিপি,
জন্মের রক্ত রঙ সগৌরবে হেসে উঠবে ফের।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সুচিন্তিত মতামত দিন

নবীনতর পূর্বতন