তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়

তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়
একটু আলোর জন্য 

কষ্ট গোপন রেখে সে রোজ রোজ ঘরে ফেরে।
বিপন্ন দিন শুধু সারাক্ষণ সঙ্গে থাকে ছায়ার মতন,
নির্ঘুম মেঝের কাছে কান্না চেপে রেখে
আনন্দের ফর্দ মিলিয়ে দেখে নেয়,
তারপর একলাফে উঠে যায় শিয়ালদা লোকালে।
প্রান্তিক দুঃখগুলো জমা করে দেয় স্টেশনে স্টেশনে।
দূর গাঁয়ে আলো জ্বলে ওঠে। দিনশেষে ঘরে ফেরা মনে রাখে
ভিক্ষা না পাওয়া কোন এক নতুন বাউল।

উঁচুনিচু উঠোনে কেউ নিটোল আলপনা এঁকে দেবে এমন নয়
বরং রাতভোরে ঝড় উঠলে পথ তাকে ডাকতে ভুলে যায়।
তবু পথে নামতেই হয়। কষ্ট গোপন থাকে, বৃষ্টিরা ঝরে পড়ে
লোকালের জানলায়। উচ্চকণ্ঠে বলতে জানেনা ভালোবাসি,
তবু ভেন্ডার কামরায় কোন এক মনের মানুষ যখন পাশাপাশি এসে বসে,
মোটা সুতোর গামছায় কপালের ঘাম মুছিয়ে দেয়,
তখন তার দুচোখে খেলা করে ভুবনভরা আলো।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সুচিন্তিত মতামত দিন

নবীনতর পূর্বতন