x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

সোমবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮

শব্দের মিছিল | ৭৫তম সঙ্কলন

sobdermichil | ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮ | | মিছিলে স্বাগত

আরও একটা বছর চলে যাচ্ছে। আর ২৪ ঘন্টা পরেই পৃথিবী স্বাগত জানাবে নতুন বছরকে। এইরকম একটা আবহে আজ প্রকাশ পাচ্ছে শব্দের মিছিল'-এর ৭৫ তম সংকলন।

আজকের দিনে, সর্বাত্মক তৈলমর্দনের যুগে, কাউকে তােষামােদ না-করে একটি মাসিক ওয়েব পত্রিকার
৭৫টি সংখ্যা নিয়মিত ব্যবধানে বের করে যাওয়া সহজ কাজ ছিল না। কিন্তু মিছিলের লেখক- পাঠক-শুভানুধ্যায়ীরাই ছিলেন মিছিলের প্রকৃত শক্তি। তাঁদের সাগ্রহ অংশগ্রহণে ও প্রেরণায় ( ইচ্ছে করেই 'অনুপ্রেরণা' শব্দটি আমরা ব্যবহার করছি না) মিছিল এই লক্ষ্যে পৌঁছতে পেরেছে।

গুগুলের আন্তর্জাতিক ওয়েব সার্চ পরিসংখ্যানে শব্দের মিছিলে এযাবৎ ৬ লক্ষাধিক মানুষের পরিক্রমা আমাদের আরও দায়িত্বশীল করে তুলেছে, মানুষের পাশে থাকতে। এই ধারা বজায় থাকলে আগামীতেও মিছিলের গতি এভাবেই অব্যাহত থাকবে, আশাবাদী।

পুরােনাে বছর চলে যাওয়ার মুখে স্বীকার করতে দ্বিধা নেই, আমরা ভালাে নেই। এই দেশ, এই রাজ্য, এখানকার সমস্ত জনপদ যেন এক সস্তা খেলার সামগ্রী হয়ে দাঁড়িয়েছে নিয়ন্ত্রকদের হাতে! মানুষের স্বাধীনতা, বাঁচার অধিকার, কাজের অধিকার, সবই যেন ক্রমশ চটুল রাজনীতির হাতে পড়ে ভূলুণ্ঠিত! এরকম অন্ধকারের মধ্যে আমাদের চাই আলাের দিশা দেখানাের মতাে মানুষ, যাঁদের সংখ্যা কমে আসছে ক্রমশ।

বাঙালির কাছে ২০১৮ সালটি শেষ হলাে বড়াে বেদনার মধ্যে দিয়ে। বাংলা সংস্কৃতি জগৎ হারিয়ে ফেললাে একের পর এক কয়েকজন প্রবাদপ্রতিম নক্ষত্রকে। বাংলা গানের স্বর্ণযুগের শিল্পী দ্বিজেন মুখােপাধ্যায় চলে গেলেন। শুধু মহালয়ার গানে নয়, আমরা তাঁকে মনে রাখবাে একসময়ে আইপিটিএ-র প্রগতিশীল ও সমাজতান্ত্রিক সাংস্কৃতিক আন্দোলনের সৈনিক হিসেবে চলে গেলেন 'অমলকান্তি', 'উলঙ্গ রাজা', 'কলকাতার যীশু'-র সমাজ-সচেতক কবি নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী। তাঁর সব কালজয়ী কবিতা ছাড়াও আমরা মনে রাখবাে বাংলা কিশাের সাহিত্যকে তিনি কোন উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন 'আনন্দমেলা'-র সম্পাদক হিসেবে।

গতকালের দিনটি কেড়ে নিল বিশ্ববিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক মৃণাল সেন-কে। সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটক ছাড়া আর যে- মানুষটি বাংলা সিনেমাকে নিয়ে গেছেন আন্তর্জাতিক উচ্চতায়। শুধু তাই নয়, 'ভুবন সােম', 'কলকাতা ৭১', 'ইন্টারভিউ', 'মৃগয়া', 'খারিজ'...একের পর এক ছবি দিয়ে বলেছেন মানুষের কথা, সমাজের কথা, দেশের কথা। এঁরা সকলেই দীর্ঘজীবন পেয়েছেন, প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে অস্তমিত হয়েছেন, দুঃখের হলেও এটাই বাস্তব। কিন্তু আশঙ্কার বিষয় হলাে, তাঁদের চলে যাওয়ায় যে-শুন্যতা সৃষ্টি হয়েছে, তা পূরণ করার ক্ষমতা আজকের বাঙালির নেই।

এই বাস্তবতাকে মেনে নিয়েই আমরা ২০১৯-কে বরণ করি। আশা করি, সর্বার্থে এই অন্ধকার সময় কেটে আলাের দিকে আমাদের নিয়ে যাওয়ার পথের দিশা দেখাবে নতুন বছর।

- শব্দের মিছিল


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.