x

প্রকাশিত বর্ষপূর্তি সঙ্কলন

দেখতে-দেখতে ১০ বছর! শব্দের মিছিলের বর্ষপূর্তি সংকলন প্রকাশের সময় এ খুব অবিশ্বাস্য মনে হয়। কিন্তু অজস্র লেখক, পাঠক, শুভাকাঙ্ক্ষীদের সমর্থনে আমরা অনায়াসেই পেরিয়ে এসেছি এই দশটি বছর, উপস্থিত হয়েছি এই ৯৫ তম সংকলনে।

শব্দের মিছিল শুরু থেকেই মানুষের কথা তুলে ধরতে চেয়েছে, মানুষের কথা বলতে চেয়েছে। সাহিত্যচর্চার পরিধির দলাদলি ও তেল-মারামারির বাইরে থেকে তুলে আনতে চেয়েছে অক্ষরকর্মীদের নিজস্বতা। তাই মিছিল নিজেও এক নিজস্বতা অর্জন করতে পেরেছে, যা আমাদের সম্পদ।

সমাজ-সচেতন প্রকাশ মাধ্যম হিসেবে শব্দের মিছিল   প্রথম থেকেই নানা অন্যায়, অবিচার, অসঙ্গতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছে। এই বর্ষপূর্তিতে এসেও, সেই প্রয়োজন কমছে না। পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরবর্তী বিভিন্ন হিংসাত্মক কাণ্ড আমাদের যথারীতি উদ্বিগ্ন করছে। যেখানে বিরোধী দলের হয়ে কাজ করা বা বিরোধী দলকে সমর্থন করার অধিকার এখনও নিরাপদ নয়, সেখানে যে গণতন্ত্র আসলে একটি শব্দের বেশি কিছু নয়, সেকথা ভাবলে দুঃখিত হতেই হয়। ...

চলুন মিছিলে 🔴

বুধবার, অক্টোবর ৩১, ২০১৮

শর্মিষ্ঠা ঘোষ

sobdermichil | অক্টোবর ৩১, ২০১৮ | | মিছিলে স্বাগত
মূল্যায়ণের তুমি আমি
মোটা ঢেকি ছাঁটা চালের ভাত কারুর রোম্যান্টিসিজম হতে পারে , কারুর নেসেসিটি । সানকিতে এই ভাত জল ঢালা , পেঁয়াজ , শুকনোলঙ্কা পোড়া হল জীবন ধারণ আর কলাপাতায় , মাটির থালায় , বোনচায়না বা লা ওপালার রাইস প্লেটে শুক্তো , বাঁশপাতা , পাথরচাটা মাছের ঝাল দিয়ে ডেলিকেসি , যে ট্রাডিশান বা শৌখিন গরিবীয়ানা অনেক দামে কিনতে লোকে ভজহরি মান্না বা কস্তুরীতে যায় । এটা হল দেখা । এটার বাইরে না দেখারা থাকে । সেটা বোধ । হাড়ে হাড়ে জন্মায় । ঠোক্কর খেয়ে খেয়ে । মার খেতে খেতে মাথা তুলতে তুলতে পাল্টা দিতে দিতে বিন্দু বিন্দু সঞ্চয় । যে দেখেন বোঝেন বিচার তার । তার রেঞ্জের বাইরে ভাস্ট এরিয়া ভার্জিন মেরির মতই অনাবিস্কৃত অনাকর্ষিত । তার কি বিচার চলে ? তাই মূল্যায়ণও দূর অস্ত । তাই এই সিদ্ধান্তে উপণীত হওয়া গেল যে মূল্যায়ণ একটি আধা সত্য স্কেল যা দিয়ে পূর্ণতার মাপ কদাপি হয় না । বাড়িতে চাল বাড়ন্ত । বাজার সরকার বিদ্রোহী হয়েছেন । খাবার এবং নিন্দে করার ঠিকাদার ফ্লোরিকালচারে মগ্ন । মরসুম এসেছে । প্রায় গত শীতে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর হস্তশিল্প মেলা থেকে সখ করে কেনা ঢেঁকি ছাঁটা চালের ভাত একদিন রান্না করে লোক দেখিয়ে মুখ বইতে পোস্টিয়েই হাঁপিয়ে গেসলুম্ । অনেকে অনেক রেসিপি সাজেস্ট করেছিল । অনেকেই নস্ট্যালজিয়াক্রান্ত হয়েছিল । আমি খুব একটা উৎসাহ পাইনি । কারণ সহজেই অনুমেয় । যা কিছু চকচকে তাই কি আর সোনা ? নাকি সকলেই সোনা চেনে ? না সকলে কদর দেয় সমান ? বিতর্কিত বিষয় আশয় । আবার এ্যদ্দিন বাদে দায়ে পড়ে তাকে মনে পড়া ও সাজিয়ে গুছিয়ে পরিবেশনার ফাঁকে কিঞ্চিৎ দেখানেপনা , একটা নেসেসিটি আরেকটা শো অফ । করুন গে , করে মরুন মূল্যায়ণ । আমি দুটি সাঁটিয়ে পেট ঠান্ডা করি এবেলা ।

আবার পান্তাভাত টকে গেলে বাসী হলে ফার্মেন্টেড হলে শান্তিনিকেতনীয় বাবুদের হাঁড়িয়া বা পচানী হতে পারে । চা বাগানে বাংলা মদ্য , ঝাল ঝাল শুয়োরের মাংস সহ আহা ! আর যে গরীবের অন্নের চাহিদাই চাহিদা তার ঐটুকু খাবার টকে পচে ভাপিয়ে উঠলে পেট ভরে কই ! করুন বাবু , মূল্যায়ণ করুন । বড় বড় জিনিসের মানুষের কত মুখ কত কথা কত মুখোশ কত কান্না কত কুম্ভীরাশ্রু , সবের মূল্যায়ণের মুরোদ কি আর আছে ?

আমার দেখা ব্যক্তিগত , আমার চৌহদ্দি আপনা জগৎ । অনেক পড়ালিখা করা খোকাখুকু মা বাবাকে ইস্টিশানে ছেড়ে দিয়ে যায় , গঙ্গাসাগরে কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের চাতালে কুম্ভ মেলায় বিসর্জন দিয়ে আসে , আবার অনেক বাপে খেদানো মায়ে তাড়ানো কুলাঙ্গার কুড়িয়ে আনে তাদের আশ্রয় দেয় । সবরীমালায় মেয়ে মানষের প্রবেশ নিষিদ্ধ , জৈন মন্দিরে অজৈন হলে ঢোকা বারণ , আবার মন্দিরের পুরোহিত সাগরেদ নিয়ে মন্দিরে ধর্ষণ করে খুন করে বিধর্মীর বাচ্চা । ইরানে উনিশ বছরের মেয়েটি ধর্ষণে উদ্যত লুচ্চাটাকে ছুরি মেরে নিজেকে বাঁচালে কোর্ট ছয় বছর জেলে পচিয়ে মেয়েটিকে মৃত্যুদন্ড দেয় । নিন্ বাবু মূল্যায়ণ করুন ।

দেশের চৌকিদারের মন কি বাত শুনতে শুনতে হাজার কোটি টাকার চুরি খেয়ালই করছেন না আপনি , বিপিএলের একাউন্টে মিনিমাম ব্যালেন্স না থাকায় ব্যাঙ্ক ফাইন কাটে আর কয়েক হাজার কোটির ঋণখেলাপীর ঋণ মকুব হয় , ব্যাঙ্ক লাটে ওঠে , চোর পুঁজিপতি সরকারী পাহারায় বিদেশ পালায় , সিবিআই প্রধান ঘুষ খায় , সে চুরি প্রকাশ্যে এনে আরেক কর্তার চাকরি যায় , বিজ্ঞান যুক্তিবাদ প্রচার করলে খুন হন দাভোলকর , পানেশার , কুযুক্তি সাম্প্রদায়িকতার প্রচারকরা জনগণের ভোটে গদিতে বসে , নিন বাবু মূল্যায়ণ করুন ।

আপনার দেখা আমার দেখা নয় । আপনার মত আমার মত নয় । আপনার যুক্তি আমার যুক্তি নয় । কে কার মূল্যায়ণ করে রে বাবা ! প্রত্যেকের অকাট্য যুক্তি আছে । নিজে অভ্রান্ত এই বিশ্বাস আছে । কে কাকে কিভাবে দেখবে বিচার করবে তার কোন আলটিমেট সীমা মাপ কিস্যু নেই । সুতরাং মূল্যায়ণ ব্যাপারটা ঈশ্বর আল্লা গডের মত , যে যেভাবে বিচার করে দেখতে পায় ।

sharmisthaghosh1974@gmail.com


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.