x

প্রকাশিত

গোটাকতক দলছুট মানুষ হাঁটতে হাঁটতে এসে পড়েছে একে অপরের সামনে। কেউ পূব কেউ পশ্চিম কেউ উত্তর কেউ দক্ষিণ... মাঝবরাবর চাঁদ বিস্কুট, বিস্কুটের চারপাশে লাল পিঁপড়ের পরিখা। এখন দলছুট এক একটা মানুষ এক হয়ে হাঁটছে চাঁদ বিস্কুটের দিকে। আলাদা আলাদা মানুষ এক হয়ে হাঁটছে সারিবদ্ধ পিঁপড়েদের বিরুদ্ধে। পথচলতি যে ক'জনেরই নজর কাড়ছে মিছিল তারাই মিছিল কে দেবে জ্বলজ্বলে দৃষ্টি। আগুন নেভার আগেই ঝিকিয়ে দেবে আঁচ... হাত পোহানোর দিন তো সেই কবেই গেল ঘুচে, যেটুকু যা আলো বাকী সবটুকু চোখে মেখে চাঁদ বিস্কুট চেখে চেখে খাক এই মিছিলের লোক। মানুষ বারুদ কিনতে পারে, কার্তুজ ফাটাতে পারে, বুলেট ছুঁড়তে পারে খালি আলো টুকু বেচতে পারেনা... এইসমস্ত না - বেচতে পারা সাধারণদের জন্যই মিছিলের সেপ্টেম্বর সংখ্যা... www.sobdermichil.com submit@sobdermichil.com

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

মৌমিতা ঘোষ

বুধবার, অক্টোবর ৩১, ২০১৮

আব্দুল মাতিন ওয়াসিম

sobdermichil | অক্টোবর ৩১, ২০১৮ |
প্রতিহত করো হে আমার জাতি,   তুমি প্রতিহত করো তাদের -
প্রতিহত করো হে আমার জাতি, 
তুমি প্রতিহত করো তাদের - 
মূল- দারিন তাতুর, ইজ়রায়েল  
অনুবাদ- আব্দুল মাতিন ওয়াসিম 

[ দারিন তাতুর। ছত্রিশ বর্ষীয় এক ফিলিস্তিনি কবি, চিত্রগ্রাহক ও সক্রিয় সমাজকর্মী। থাকেন ইজ়রায়েলে, নাজারেথ-এর কাছে রেইনে। ২০১৫ সালে নিজের লেখা এই কবিতাটি ইউটিউবে পাঠ করেছিলেন তিনি। এই কবিতার মাধ্যমে সন্ত্রাসবাদকে হাওয়া দেওয়া ও সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করার অভিযোগ এনে  ২০১৫-র অক্টোবরে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। ক’মাস বন্দি থেকে ২০১৬-তে ছাড়া পেলেও গৃহবন্দি থাকেন আরও চার মাস। সে-সময়ে ফোন, ইন্টারনেট সহ যোগাযোগের সকল মাধ্যম থেকে তাঁকে দূরে রাখা হয়েছিল। শেষের দিকে, কোনো আত্মীয় সঙ্গে থাকলে সপ্তাহান্তে মাত্র দু’ঘণ্টার জন্য বাইরে যেতে দেওয়া হত। কারণ, ইজ়রায়েল সরকারের ধারণা, তাতুর জনগণের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে অত্যন্ত বিপদজনক। এবং গত ৩১শে জুলাই তাঁকে পাঁচ মাসের কারাদণ্ডও দিয়েছে তেলআবিব। 
তাঁর এই কবিতার শব্দমালা নিঃসন্দেহে ফিলিস্তিন-ইজ়রায়েল সংঘাতের আবহ টেনে আনে। তবে আমার ধারণা, কবিতাটি আসলে কবির মনের এক শৈল্পিক প্রকাশ। একে ‘হিংসা’র পর্যায়ে ফেলা যায় না। এ প্রসঙ্গে তাঁর আইনজীবী গ্যাবি ল্যাস্কিও মনে করেন- ‘আদালতের এই রায় বাকস্বাধীনতা ও অনুভূতি প্রকাশের অধিকার খর্ব করেছে। ইজ়রায়েলে বসবাসকারী সংখ্যালঘু ফিলিস্তিনিদের সাংস্কৃতিক অধিকারও লঙ্ঘন করা হয়েছে এই রায়ের মাধ্যমে’।    

দারিনের লেখা দু’টি কবিতার বইও আছে। তাঁর প্রকাশিত প্রথম কাব্যগ্রন্থটির নাম ‘আল্‌-গাজ়্‌উল্‌ আখীর’ (দ্য ফাইনাল ইনভেশন)। আর দ্বিতীয়টি ‘হিকায়াল্‌ কানারি’ (দ্য ক্যানারি টেলস)। কারান্তরালে থাকার সময় ‘শায়েরাতুন্‌ মিন্‌ ওরায়িল্‌ ক্বুয্‌বান’ (আ পোয়েট বিহাইন্ড দ্য বারস) নামে একটি বিখ্যাত কবিতাও লেখেন তিনি। সম্প্রতি ইংল্যান্ড থেকে প্রকাশিত বিখ্যাত লেখক নাওমি ফোয়েলি-র বহুল চর্চিত বই ‘আ ব্লেড অব গ্রাস’-য়ে স্থান পেয়েছে তারিক হায়দারের করা তাঁর কয়েকটি কবিতার ইংরেজি অনুবাদও। এবং প্রকাশের পথে রয়েছে তাঁর উপন্যাস, ‘মাওয়িদুন মাআল হীতান’ (তাঁর পিতা তারিক তাতুর-এর মন্তব্য অনুযায়ী, এই উপন্যাসটির একই সাথে আরবি, ইংরেজি ও হিব্রুতে প্রকাশিত হবার কথা)। দারিন মনে করেন, তাঁর এই বই তাঁকে করা অনেক প্রশ্নের উত্তর আরও স্পষ্ট করে দেবে। 

অন্যদিকে, ন’জন পুলিৎজার পুরস্কার বিজয়ী-সহ একশো পঞ্চাশ জন আমেরিকান লেখক-কবি, সেই সাথে সারা পৃথিবীর সাহিত্যকর্মীরা দারিনের কারাদণ্ডের তীব্র বিরোধিতা করেছেন। তাঁরা মনে করেন, ইজ়রায়েল সরকার অন্যায় ভাবে গত কয়েক বছর ধরে লাগাতার ফিলিস্তিনের কবি-সাহিত্যিকদের বন্দি করে নির্মম অত্যাচার করে চলেছে।]

প্রতিহত করো হে আমার জাতি, তুমি প্রতিহত করো তাদের    
কুদ্‌সে, এই কুদ্‌সেই আমি লাগিয়েছি প্রলেপ নিজ ক্ষততে 
আর ছুঁড়ে ফেলেছি আমার সকল হতাশা ‘আল্লাহ্‌র’ নামে;   
নিজ হাতেই আমি বহন করেছি আমার প্রাণ 
আরব ফিলিস্তিনিদের উদ্দেশে।       
ঐ মিথ্যা শান্তিচুক্তি আমি মানি না—   
এই দেশ, এই পতাকা আমার
আমি কখনই একে নীচু হতে দেবো না।   
আমিই তাড়াবো তাদেরকে আমার এ ভিটে থেকে 
বাধ্য করবো মাথা নোয়াতে কোনো এক প্রহরে ভাবীকালের;     
হে আমার জাতি প্রতিহত করো, তুমি প্রতিহত করো তাদের।  
সাম্রাজ্যবাদীদের প্রতাপকে চূর্ণবিচূর্ণ করে দাও তুমি  
শামিল হও শহীদদের কাফেলায় 
টুকরো টুকরো করে ছুঁড়ে ফেলো লজ্জার সেই দস্তুর 
যে দস্তুর বয়ে এনেছে লাঞ্ছনা 
দাঁড়াতে দেয়নি আমাদেরকে ন্যায়ের পক্ষে 
কোনো অপরাধ ছাড়াই জ্বালিয়ে দিয়েছে আমাদের শিশুসন্তানদের 
প্রকাশ্যে বধ করেছে আমাদের পায়রাগুলো 
এমনকি দিনের আলোয় হত্যা করেছে তাদের;  
হে আমার জাতি প্রতিহত করো, তুমি প্রতিহত করো তাদের।  
ভেঙে গুঁড়িয়ে দাও সাম্রাজ্যবাদীদের থাবা 
আর কর্ণপাত করো না সেই পিশাচদের কথায় 
শান্তির মিথ্যা প্রতিশ্রুতিতে আমাদের বেঁধে রেখেছে যারা   
ভয় পেয়ো না তুমি তাদের মারকাফা ট্যাংকের হুঙ্কার 
তোমার হৃদয়ে লালিত সত্য যে অধিক দৃঢ়;  
যতদিন তুমি লড়ে যাবে মাতৃভূমির জন্য 
বেঁচে থাকবেন মহান যোদ্ধারা, বেঁচে থাকবে বিজয়।  
ওদিকে আলি, হ্যাঁ সিংহবীর আলি
হাঁক ছেড়েছেন তাঁর কবর থেকে–  
প্রতিরোধ গড়ে তোলো হে আমার ক্ষুব্ধ জাতি
আর লিখে রাখো আমায় গদ্যের রূপে ধূপগাছের ডগায় 
তুমিই এখন প্রতিষেধক আমার জীর্ণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গের 
প্রতিহত করো হে আমার জাতি, প্রতিহত করো  
তুমি প্রতিহত করো তাদের।   


قاوم يا شعبي قاومهم
دارين طاطور

قاوم يا شعبي قاومهم
في ‏القدس
في القدس ضمدت جراحي
ونفثت همومي لله
وحملت الروح على كفي
من أجل فلسطين العرب
لن أرضى بالحل السلمي
لن أُنزل أبداً علم بلادي
حتى أُنزلهم من وطني
أركعهم لزماني الآتي
قاوم يا شعبي قاومهم
قاوم سطو المستوطن
واتبع قافلة الشهداء
مزق دستوراً من عار
قد حمل الذل القهار
أردعنا من رد الحق
حرقوا الأطفال بلا ذنب
وهديل قنصوها علناً
قتلوها في وضح نهار
قاوم يا شعبي قاومهم
قاوم بطش المستعمر
لا تصغِ
لا تصغِ السمع لأذناب
ربطونا بالوهم السلمي
لا تخشى ألسن ماركافا
فالحق في قلبك أقوى
ما دمت تقاوم في وطنك
عاش العظماء والنصر
فعليٌّ
فعليٌّ نادى من قبره
قاوم يا شعبي الثائر
واكتبني نثراً في الندّ
قد صرتَ الرد لأشلائي
قاوم يا شعبي قاوم
قاوم يا شعبي قاومهم. 




Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.