সুদীপ ভট্টাচার্য্য


চুপ

চারিপাশটা অন্ধকারের কেউটে,
কামড় না দিয়েও বিষ ছুঁড়েছে গায়।
লবনের দাম জিজ্ঞেস কেউ করে, কেউ করেনা,,
তবুও সংগ্রামের আগে সমাধি পেয়েছে ঠাঁই।।

আমিতো মরেছি অনেক বছর আগেই,
অস্তিত্ব শুধু কৃত্রিম সাড়ম্বরে।
লোভ দেখিয়ে ছিনিয়ে নিচ্ছে দেহ,
পাতার মতো ঝড়ছে মাথা নেড়ে।।

আরেকটি বার শপথ বাক্য দিন,
জন্ম দেবো আমার আমি টাকে।
সৈন্য সবে অঙ্কে বাজি রাখুক,
মন্ত্রী কেবল হিসাবটা গুনে রাখে।।

পতনের পরে প্রাচীনই দোষী হয়,
বন্দুক ধরে একে অন্যের ঘাড়ে।
সাবলীল যদি  প্রেমের যুক্তি ফাঁদে,
জ্ঞান পাপীদের শৃঙ্খল টনক নাড়ে।।

সময়ের অভাব বাস্তুই ভালোবাসে,
তার চেয়েও আলস্য ফুটপাত।
হঠাৎ করে জ্যোৎস্নাকে ভালোবেসো,
পূর্ণিমা দেখাবে তোমায় উল্কাপাত।।

শুধু ভালোবেসে আজ নিজের শরীরটাকে,
মোহের গন্ধে অন্ধকারে মরি।
আজ শহরে শৃগালের মত খিদে,
খবরের পাতায় শুধু মৃত্যুর দরাদরি।।

 সুদীপ ভট্টাচার্য্য 



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সুচিন্তিত মতামত দিন

নবীনতর পূর্বতন