x

প্রকাশিত

​মহাকাল আর করোনাকাল পালতোলা নৌকায় চলেছে এনডেমিক থেকে এপিডেমিক হয়ে প্যানডেমিক বন্দরে। ওদিকে একাডেমিক জেটিতে অপেক্ষমান হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।​ ​দীর্ঘ সাতমাসের এ যাপন চিত্র মা দুর্গার চালচিত্রে স্থান পাবে কিনা জানি না ! তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানে-

​'চ'য়ে - চালা উড়ে গেছে আমফানে / চ'য়ে - কতদিন হাঁড়ি চড়েনি উনুনে / চ'য়ে - লক্ষ্মী হলো চঞ্চলা / চ'য়ে - ধর্ষিতা চাঁদমনির দেহ,রাতারাতি পুড়িয়ে ফেলা।

​হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষটি লালমার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ দেয় ক্যালেন্ডারের পাতায়, চোদ্দদিন যেন চোদ্দ বছর। হুটার বাজিয়ে শুনশান রাস্তায় ছুটে যায় পুলিশেরগাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স আর শববাহী অমর্ত্য রথ...। গঙ্গা দিয়ে বয়ে গেছে অনেকটা জল, 'পতিত পাবনী গঙ্গে' হয়েছেন অচ্ছুৎ!

এ কোন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

সমীরণ চক্রবর্তী

রবিবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮

মন্দিরা ঘোষ

sobdermichil | সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
মন্দিরা ঘোষ
শেষ গন্তব্য

আন্তরিকতার ফুলস্কেপ কাগজে
রক্তকরবীর ঘ্রাণ সরে গেলে
কাগজটি নৌকো হয়ে ভেসে যায়
পিছুটানগুলি দুলতে থাকে
ঢেউয়ের গায়ে

ভেসে থাকা প্রশ্নচিহ্নগুলি থেকে
একটি দাঁড়ি টানা হলে
অনেকসময় আন্তরিক হাতটি আগন্তুক হয়ে ওঠে
যতিচিহ্নের ব্যবহার  ভুলে গেলে তখন
জলস্তর বেড়ে যায়

ফিরে আসার পরও থেকে যায়
বাঁপাশের গোপনীয়তা
ছুঁয়ে থাকে শ্বাসঘর  যেখানে লাল নীল
প্রজাপতির আলপনা আঁকা হয় রোজ

থামতে চাইলেও থামা যায় না বলে
আরো ডান পাশে জড়ানো ব্যক্তিগত শ্বাস
স্পর্শগুলি ঘুরে ফিরে
আকর্ষী ফুল হয়ে যায়

আলোঘরে অস্থিরতা  ফেলে এসে
ধোঁয়া রঙ ঠোঁট প্রদীপের নাভিমূলে
উত্তাপে শুধু জল বাড়ে
পার ভেঙে ডুবে যায় সবুজ ভারসাম্য

শুধু নীরবতার জন্য
এই পর্যন্ত দাঁড়ি টানা থাক
একটি আনমনা সন্ধে
শেষ গন্তব্যে হাত নাড়ুক



Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.