x

আসন্ন সঙ্কলন


যারা নাকি অনন্তকাল মিছিলে হাঁটে, তাদের পা বলে আর বাকি কিছু নেই। নেই বলেই তো পালাতে পারেনা। পারেনা বলেই তারা মাটির কাছাকাছি। মাটি দ্যাখে, মাটি শোনে, গণনা করে মৃৎসুমারী। কেরলের মাটি কতটা কৃষ্ণগৌড়, বাংলার কতটা তুঁতে! কোন শ্মশানে ওরা পুঁতে পালালো কাটা মাসুদের লাশ, কোন গোরেতে ছাই হয়ে গেলো ব্রহ্মচারী বৃন্দাবন। কোথায় বৃষ্টি টা জরুরী এখন, কোথায় জলরাক্ষুসী গিলে খাচ্ছে দুধেগাভিনের ঢাউস পেট। মিছিলে হাঁটা বুর্বক মানুষ সেসবই দেখতে থাকে যেগুলো নাকি দেখা মানা, যেগুলো নাকি শোনা নিষেধ, যেগুলো নাকি বলা পাপ। দেশে পর্ণ ব্যন্ড হল মোটে এইতো ক'টা মাস, সত্য নিষিদ্ধ হয়েছে সেই সত্যযুগ থেকে। ভুখা মিছিল, নাঙ্গা মিছিল, শান্তি মিছিল, উগ্র মিছিল, ধর্ম মিছিল, ভেড়ুয়া মিছিল যাই করি না কেন এই জুলাইয়ের বর্ষা দেখতে দেখতে প্রেমিকের পুংবৃন্ত কিছুতেই আসবে না হে কবিতায়, কল্পনায়... আসতে পারে পৃথিবীর শেষতম মানুষগন্ধ নাকে লাগার ভালোলাগা। mail- submit@sobdermichil.com

ভালোবাসার  আষাঢ় শ্রাবণ

অতিথি সম্পাদনায়

সৌমিতা চট্টরাজ

রবিবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮

অরূপ কুমার পাল

sobdermichil | সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮ |
অরূপ কুমার পাল
স্বপ্নীল


কখনও মাটি ছাড়তেই মুক্তিবেগে
জ্বলে উঠে আগুন
ব্রাউনিয় গতিতে অগনিত ফুলকি  দিক বিদিক
বাতাসেই ঘর বেঁধে ফেলে শেষে
স্থিত হতেই ভস্মেরা বেঁচে ওঠে,  অলীকের আলো পায়
স্পন্দিত হয় প্রথম হৃদস্পন্দন
প্রমাদ গুনতে গুনতেই জাতকের উৎপত্তি
সবুজ শরীর আর ইন্দ্রিয়মায়া তার
আজন্ম জন্মাচ্ছে এভাবেই -আমার স্বপ্নের মানুষেরা


আর কত মন্থন নরম মনের আনাচে কানাচে?
কেন ঢেউ এসে ধুয়ে যায় বাড়িঘর,আসক্তি
ঝাপসা আঙিনায় প্রথম হিমের স্বাদ ছেড়েছি ফি-বছর
শেষে স্বপ্নেরা মারা যায় বলে

এখন একলায় দীপ জ্বেলে পাহারায় শ্রাবণ
হয়তো এবার স্বপ্নেরা মরবেনা উৎসবে



Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.