x

প্রকাশিত

​মহাকাল আর করোনাকাল পালতোলা নৌকায় চলেছে এনডেমিক থেকে এপিডেমিক হয়ে প্যানডেমিক বন্দরে। ওদিকে একাডেমিক জেটিতে অপেক্ষমান হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।​ ​দীর্ঘ সাতমাসের এ যাপন চিত্র মা দুর্গার চালচিত্রে স্থান পাবে কিনা জানি না ! তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানে-

​'চ'য়ে - চালা উড়ে গেছে আমফানে / চ'য়ে - কতদিন হাঁড়ি চড়েনি উনুনে / চ'য়ে - লক্ষ্মী হলো চঞ্চলা / চ'য়ে - ধর্ষিতা চাঁদমনির দেহ,রাতারাতি পুড়িয়ে ফেলা।

​হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষটি লালমার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ দেয় ক্যালেন্ডারের পাতায়, চোদ্দদিন যেন চোদ্দ বছর। হুটার বাজিয়ে শুনশান রাস্তায় ছুটে যায় পুলিশেরগাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স আর শববাহী অমর্ত্য রথ...। গঙ্গা দিয়ে বয়ে গেছে অনেকটা জল, 'পতিত পাবনী গঙ্গে' হয়েছেন অচ্ছুৎ!

এ কোন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

সমীরণ চক্রবর্তী

শনিবার, জুন ৩০, ২০১৮

রবীন বসু

sobdermichil | জুন ৩০, ২০১৮ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
রবীন বসু
প্রেম : বুকের উদ্ভাস

তোমাকে অক্ষর করে ভাসিয়েছি সাগরে
তোমাকে ধুলি-চন্দনে লেপটে নিয়েছি অঙ্গে
তোমাকে অনাদরে ফেলেছি ছুঁড়ে, আবার
তোমাকেই বুকে জড়িয়ে সারারাত নির্ঘুম থেকেছি ।

চাতুর্যের চোরাবালি আর মুখোশের আড়ালে
সেই তুমি প্রেম, জ্বলেছ আর নিভেছ—
দীপ্তিহীন দীপ্তময় অনন্ত ইশারা ধরে
সময় পেরিয়ে ওই অখণ্ড সময়ের দিকে ।

“চাকা” হয়ে ঘুরে যাচ্ছ, চক্রবৎ নিবেদনে আছো
নিঃসীম অন্ধকারে তুমি আলো হয়ে ভাসো ;
আঁচলে যত্ন লেখা, পরাণ পাখিটিকে ধরি
অধরা সে পাখি শুধু খাঁচা কাটে উড়ান উড়ান…

উড়ানেই  উড়ে গেলে, ভেসে গেলে কলার মান্দাসে
স্বর্গ তো কাছেই ছিল অজানিত বুকের উদ্ভাসে !


সম্ভোগেই তৃপ্তি জাগে

সঙ্গমে লিপ্ত হলে সম্ভোগেই তৃপ্তি জাগে মন
আশ্লেষে আবিষ্ট হয়ে পুরুষের শরীর খনন ।
খননে যে অগ্নি ওঠে, অগ্ন্যুৎপাতে শুধু ধায়
জ্বলনে শীতলপাটি, কামসূত্র বহুদূরে যায় ।

দেহের ভিতরে আছে অজানা সে আপনজন
তাকে ছুঁলে সম্ভোগ পেয়ে যাবে নিজস্ব মনন ।
মন তো আসল চাবি, সব সুখ খুঁটে নিতে পারে
মোহিতে আবিষ্ট হয়, অন্তর্লীন অসুখ যে সারে ।





Comments
0 Comments
 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.