x

প্রকাশিত | ৯২ তম মিছিল

মূল্যায়ন অর্থাৎ ইংরেজিতে গালভরে আমরা যাকে বলি ইভ্যালুয়েশন।

মানব জীবনের প্রতিটি স্তরেই এই শব্দটি অবিচ্ছেদ্য এবং তার চলমান প্রক্রিয়া। আমরা জানি পাঠক্রম বা সমাজ প্রবাহিত শিক্ষা দীক্ষার মধ্য দিয়েই প্রতিটি মানুষের মধ্যেই গঠিত হতে থাকে বহুবিদ গুন, মেধা, বোধ বুদ্ধি, ব্যবহার, কর্মদক্ষতা ইত্যাদি। এর সামগ্রিক বিশ্লেষণ বা পর্যালোচনা থেকেই এক মানুষ অপর মানুষের প্রতি যে সিদ্ধান্তে বা বিশ্বাসে উপনীত হয়, তাই মূল্যায়ন।

স্বাভাবিক ভাবে, মানব জীবনে মূল্যায়নের এর প্রভাব অনস্বীকার্য। একে উপহাস, অবহেলা, বিদ্রুপ করা অর্থই - বিপরীত মানুষের ন্যায় নীতি কর্তব্য - কর্ম কে উপেক্ষা করা বা অবমূল্যায়ন করা। যা ভয়ঙ্কর। এবং এটাই ঘটেই চলেছে -

চলুন মিছিলে 🔴

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭

দীপশিখা চক্রবর্তী

sobdermichil | ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
দীপশিখা চক্রবর্তী
 ধর্ষণ 

নদীর পাড়ের উদাসী হাওয়ায় শিশিরভেজা ঘাসে,
পূর্ণিমা রাতের জোৎস্না নেয় আকাশে জলের ঘ্রাণ;
মালতী দুচোখে মেখে নিত সেই নির্মলতা!
জানতো না,ওই পাড়েই তার অবয়ব হবে লুণ্ঠিত।
নিত্য পিছু ছিল কামে জ্বলন্ত কিছু বিষাক্ত চোখ,
হিংস্র পশুর মতো ভক্ষণ করেছিল তার শীর্ণকায় দেহ;
মালতীর কাতর চিৎকারে সেদিন কেউ দেয়নি সাড়া।
পাখিরাও প্রত্যক্ষ করেছিল তার দেহের রক্তক্ষরণ,
ভাষাহীন গাছেরাও পারেনি দিতে ছায়া;
দ্বিধায় সন্ত্রাসে আর কোনদিন ফুটবে না ফুল।
মালতীর মৃত শরীর ঘিরে থোকা থোকা কৃষ্ণচূড়া,
ছড়িয়ে রক্ত,তাজা লাল রক্ত।
পাড়ের ধারের পড়ে থাকা দেহে কেউ দেয়নি একটুকরো কাপড় ;
নেই কোনো মৌনমিছিল,কোনো প্রতিবাদ,
মালতী আজ ভোরের খবর,মোমবাতিরা শান্ত।
ধর্ষিতারা ঘরের কোণে পড়ে,মর্যাদা জোটেনা আর,
পৌরুষের লাম্পট্যে কাটায় তারা দুঃস্বপ্নের রাত।
নিষ্প্রাণ কাগজে কলম চলুক,যদি পায় তারা মান,
হায়রে সমাজ এগিয়ে এসে দাও তাদের স্হান।



Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

�� পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ শব্দের মিছিলের সর্বশেষ আপডেট পেতে, ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.