x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭

ঐশী দত্ত

sobdermichil | সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
ঐশী দত্ত
 পাহাড়ি ফুল 

আরও কিছু পাহাড়ি ফুল দেখে নেয় ঘোলাজলে,
পুরুষের অপূর্ব দৈহিক গড়ন
মারাত্মক নেশায়- রোদে ভেঙে যাওয়া

নারীর মুখের বৈশাখ;

পৃথিবীর কিছু মুখস্ত সংলাপ ভুলে
আরও কিছু পাহাড়ি ফুল মনে রাখে,
পিতৃত্বের হাকডাক বিব্রত ব্যয়িত সময়
আলোর কান্নায়- তৃষ্ণায় ভরপুর মাতৃত্ব,
প্রাণ জাগানো পৃথিবীর যাত্রাপথ;

আরও কিছু পাহাড়ি ফুল দেখে নেয়,
ছোট ছোট শিশুদের পরিপাটি স্নান
ভেতর ভেতর দুধভাত
স্কুল কলেজের সমস্ত সবুজ
প্রেমের শঙ্খে কে বাড়ে? কেই বা বাজায়?
পৃথিবীই বা পুড়ছে কার দীর্ঘশ্বাসে?

মানুষের পদক-খ্যতির সংসদ ছেড়ে আরও কিছু পাহাড়ি ফুল অন্যরকম চায়,
বৃদ্ধের সৌন্দর্যের নির্মল জলে শুদ্ধ হোক সবার মন
ভুদৃশ্যের গোপন গঙ্গায়- হোক অবসান

আদিবাসী নির্যাতন,
শিশুহত্যা ও ধর্ষণ
এখন সময় এসেছে
নারীশক্তি বোঝবার
জাগুক পুরুষ কর্তব্যবোধের জানালায়।


 সময় নাচন 

অমোঘ শোকে শুকনো পাতা মনন ছাড়া
ঠোঁট ছোঁয়ালে ধানের বাড়ি সবুজ হারা
মেয়ে বেলার নরম মাঠে দুঃখ যতই
শীতপুকুরে গল্প খোলে আঙুল ওই।

বিরতিহীন রোদের খেলা জানলা দিয়ে
খেয়াল করে কে ভেসে যায় নতুন নিয়ে
বলতো তুই লাল সবুজে কোন মুহূর্ত?
কোন বিকেলে মাঠ জেনেছে বালির শর্ত?

জেগে উঠার আশার ছায়া কেউ দেখে না
ঢেকুর তোলা দিনের বেলা  কেউ নড়ে না
এমনি করে সাঁঝের আগে মুখের ভাষা
নিঃস্ব হয়ে দেয় বাড়িয়ে ভয়ের পাশা।

জল নদীতে অসীম কালো বদলে গিয়ে
আবেগ ভরা সুখের ঘাটে চোখ জুড়িয়ে
গভীর ঋণে শান্তি প্রিয় দূর দেয়াল
ভালবাসায় আলোর পথে বাঁচে খেয়াল।

হাতছানিতে আসবে তুমি বুকের কাছে?
মনের যত গাঢ় আদর বাজুক ধাঁচে
এই শহরে কাগজ রেখে একটু লেখ
আসবে যারা সব হটিয়ে  তাদের দেখ।


 ভ্রম 

ভেসে গেলাম নৈঃশব্দের স্ফটিক হৃদে
তীক্ষ্ন দৃষ্টির তদন্তে
অনিঃশেষ জীবন নিরিবিলি,
যেন অবসন্ন ফেরার
একেক স্তম্ভ এড়িয়ে;
তুমি,
আলাদা কোন দুঃখের ধুলোমাটি নিয়েই
আমাকে জানাবে- চুম্বন অভ্যর্থনা।




Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.