x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৩১, ২০১৭

জয়িতা দে সরকার

sobdermichil | আগস্ট ৩১, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
জয়িতা দে সরকার
প্রতি সংখ্যার মতই আমরা আবার হাজির নানান স্বাদের রান্না নিয়ে। সামনেই দুর্গাপূজা। সকলেই তৈরি হচ্ছেন সাজগোজ,বেড়াতে যাওয়া আরও কত প্ল্যান। কিন্তু এরসাথে যদি কিছু ভালো ভালো রেসিপি পাওয়া যায় এবং রান্না করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেওয়া যায় তাহলে তো কথাই নেই। কি বলেন বন্ধুরা? তাহলে আর দেরি কেন চলুন সরাসরি রেসিপিতে।

নিজের রান্নাঘর থেকে ছবিসহ এবারের রেসিপিগুলো আমাদের পাঠিয়েছেন বর্ধমানের শম্পা বিশ্বাস। দুটো নিরামিষ এবং তিনটে আমিষের লোভনীয় রেসিপি আমরা এই পর্বে শেয়ার করব। আজকের রেসিপিগুলো যথাক্রমে,

১-নুডলস্‌ ফ্রাই।  (প্রথম পাতে)
২-পুর-পটল মশালা (গরম ভাতের সাথে)
৩-ফিস টিক্কা (বাঙালীর পাত মাছ ছাড়া মানায় না) 
৪-চিকেন স্যতে (ডিনারের শুরুতে স্ন্যাক্স হিসাবে)
৫- এগ সিক্সটি ফাইভ (ডিনারে উইথ রোটি) 

রেসিপিগুলো শেয়ার করার আগে চলুন দু-এক কথা জেনে নিই শম্পা বিশ্বাসের সম্পর্কে -
আজকের বন্ধু শম্পার বড় হয়ে ওঠা জয়রামবাটির খুব কাছাকাছি। বিয়ের পর থেকে বর্ধমানে। অনেক মেয়ের মতই নিজের পরিচয় গর্বের সঙ্গে গৃহবধূ হিসাবেই দেয় শম্পা। সারাদিনের অজস্র কাজের মাঝেও শম্পা জানে নিজের শখগুলোকে বাঁচিয়ে রাখতে। আর তাই সময় পেলেই শম্পা নানানরকম বই পড়তে এবং সবরকমের গান শুনতে খুব ভালোবাসে। আর রান্না...? হাতা-খুন্তি হাতে পেলেই শম্পার মাথায় উঁকিঝুঁকি দেয় বিভিন্ন স্বাদের গন্ধ। প্রতিটা রান্নায় কিছু না কিছু নিজস্ব ছোঁয়া আনতে পারলে অন্যান্য গৃহবধূদের মতই শম্পাও খুব খুশি হয়। 
আমার পাল্লায় পড়লে আপনাদের আর রান্না শিখতে হবে না। তাই আর আপনাদের মূল্যবান সময় নষ্ট না করে সরাসরি চলে যাই কাঙ্ক্ষিত রেসিপি এবং ছবিতে। 



#রেসিপি -১  
পনির নুডলস্ ফ্রাই 


স্টেপ ওয়ান, পনির নুডলস্ ফ্রাই পনির চৌকো করে কেটে লেবুর রস, গোলমরিচ গুঁড়ো , হলুদ গুঁড়ো , কাশ্মিরী লঙ্কা গুঁড়ো , লবন,অল্প চিনি ,কসৌরি মেথি গুঁড়ো ,গরম মশলা গুঁড়ো দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে ৩০ মিনিট ।

স্টেপ টু, কড়াই এ জল আর লবন দিয়ে নুডলস্ সেদ্ধ করে ঠান্ডা জলে ধুয়ে জল ঝরাতে দিতে হবে। 
স্টেপ থ্রি, জল ঝরে গেলে নুডলস্ এ সামান্য ময়দা আর গোলমরিচ গুঁড়ো হাল্কা হাতে মাখিয়ে নিতে হবে। 
স্টেপ ফোর, এরপর পনির এর টুকরো গুলিতে ভালো ভাবে নুডলস্ জড়িয়ে দিতে হবে । 
স্টেপ ফাইভ,ফ্রাইং প্যানে রিফাইন্ড তেল গরম করে ভেজে নিলেই তৈরী চটজলদি স্ন্যাকস্। 

আহা,কত সহজে তৈরি হয়ে গেল একটি মজাদার চটপটা রেসিপি। চলুন এবার পরের রেসিপি তে যাই।


#রেসিপি- ২ 
পুর-পটল মশালা 

স্টেপ ওয়ান, পটলের খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে একদিকের মুখ কেটে বীজ গুলো বের করে নিতে হবে।পোস্ত,কাঁচালঙ্কা বেটে নিতে হবে। 

স্টেপ টু, কড়াই এ সরষের তেল দিয়ে মিহি করে কাটা পেঁয়াজ ,আর পটলের ভিতরের শাঁসসহ বীজ একটু ভেজে নিতে হবে। 

স্টেপ থ্রি, এরপর পোস্ত (একটু রেখে দিতে হবে গ্রেভির জন্য ),পরিমান মত নুন আর চিনি দিয়ে ভালো করে নেড়ে নামিয়ে নিয়ে ঠান্ডা করতে হবে।

স্টেপ ফোর, এবার পটল গুলোতে নুন মাখিয়ে ঐ পোস্তর পুর টা ভরে সরষের তেলে ভেজে তুলে রাখতে হবে।

স্টেপ ফাইভ, কড়াই এ ঘি/রিফাইন্ড তেল গরম করে গোটা গরম মশলা, তেজপাতা আর শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিতে হবে।

স্টেপ সিক্স, এবার পরপর আদাবাটা, টমেটো বাটা, পোস্ত বাটা,কাজুবাদাম বাটা,নুন,চিনি আর কাশ্মিরী লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে কষতে হবে। এরপর পটল গুলো দিতে হবে। প্রয়োজনে অল্প গরম জল দিতে হবে।

স্টেপ সেভেন, এবার ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে কিছুক্ষণ ।

স্টেপ এইট, ঢাকা খুলে অল্প গরম মশলা ছড়িয়ে নিলেই তৈরী পুর পটল মশালা। যারা নিরামিষ খেতে ভালোবাসেন তাদের জন্য একটি অতি পরিচিত সুস্বাদু রেসিপি এটি। 




#রেসিপি-তিন  
ফিস টিক্কা মশালা

স্টেপ ওয়ান, মাছ ভালোভাবে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখতে হবে।লেবুর রস,নুন,হলুদ,আদা-রসুন বাটা, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো ,গরম মশলা গুঁড়ো , জিরে গুঁড়ো , ধনে গুঁড়ো ,আর তন্দুরী মশলা মাখিয়ে ফ্রিজে রাখতে হবে ৩০ মিনিট ।

স্টেপ টু, কড়াই এ অল্প বাটার নিয়ে গোটা গরম মশলা,গোটা জিরে,বড় টুকরো করে কাটা পেঁয়াজ ,টমেটো কুচি আর কাজুবাদাম দিয়ে নাড়তে হবে। 

স্টেপ থ্রি, টমেটো নরম হলে নামিয়ে নিতে হবে আর মিহি করে বেটে নিতে হবে।

স্টেপ ফোর,ফ্রিজ থেকে মাছ বের করতে হবে। ফ্রাইং প্যানে অল্প বাটার দিয়ে মাছ গুলো ভেজে তুলে রাখতে হবে। 

স্টেপ ফাইভ, কড়াই এ বাটার গরম করে আদা -রসুন বাটা দিতে হবে,ভালোভাবে কষিয়ে তৈরী করা পেস্ট টা দিতে হবে।

স্টেপ সিক্স, হলুদ গুঁড়ো ,জিরে গুঁড়ো ,ধনে গুঁড়ো ,কাশ্মিরী লঙ্কা গুঁড়ো ,নুন,আর অল্প চিনি(রঙের জন্য)দিয়ে কষতে হবে।লেবুর রস দিতে হবে।

স্টেপ সিক্স, মশলা থেকে তেল বেরিয়ে এলে অল্প গরম জল দিতে হবে। 

স্টেপ সেভেন, ফুটে উঠলে মাছগুলো দিয়ে ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে কিছুক্ষণ ।

স্টেপ এইট, একটা চাটুতে ঘি গরম মশলা গুঁড়ো গরম করে মাছের উপর ছড়িয়ে দিলেই তৈরী ফিস টিক্কা মশালা।।  মাছের রেসিপিটি বেশ অন্যরকম। চটজলদি তৈরিও হয়ে যাবে।  


#রেসিপি-চার 
চিকেন স্যটে-

স্টেপ ওয়ান, বোনলেস চিকেন ছোটো ছোটো করে কাটতে হবে।নুন,পাতিলেবুর রস,হলুদ গুঁড়ো ,লঙ্কা গুঁড়ো ,গরম মশলা গুঁড়ো ,আদা বাটা,রসুন বাটা, গোলমরিচ গুঁড়ো ,সয়া সস মাখিয়ে ৩০ মিনিট রাখতে হবে।

স্টেপ টু, একটি পাত্রে কর্ণফ্লাওয়ার ,নুন, অল্প ময়দা ,বেকিং সোডা আর জল দিয়ে ব্যাটার বানাতে হবে।টমেটো,ক্যাপসিকাম আর পেঁয়াজ বড় কিউব করে কাটতে হবে।

স্টেপ থ্রি, এবার স্টিকে এক টুকরো করে পেঁয়াজ ,ক্যাপসিকাম,টমেটো,চিকেন গেঁথে দিতে হবে পরপর।

স্টেপ ফোর, এইভাবে পুরো স্টিক টা ভর্তি করে কর্ণফ্লাওয়ারের ব্যাটারে ডুবিয়ে সাদা তেলে ভেজে নিতে হবে।

স্টেপ ফাইভ, কড়াই এ সামান্য সাদা তেল দিয়ে রসুন কুচি ,আদা কুচি আর কাঁচালঙ্কা কুচি দিতে হবে।

স্টেপ সিক্স, এবার একটু বেশী টমেটো সস আর অল্প সয়া সস দিতে হবে।

স্টেপ সেভেন, তারপর একটু চিলি গার্লিক সস ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে চিকেন স্টিক গুলো দিতে হবে।

স্টেপ এইট, ভালো করে নাড়াচাড়া করে যখন গ্রেভি টা চিকেন স্টিকে ভালোভাবে মাখিয়ে যাবে তখন নামিয়ে নিতে হবে। ডিনারের শুরুতে দারুন জমজমাট একটি পদ। 



#রেসিপি-পাঁচ
এগ সিক্সটি ফাইভ

স্টেপ ওয়ান, ডিম সেদ্ধ করে কুসুম বের করে নিতে হবে।

স্টেপ টু, সাদা অংশ টা কুচি কুচি করে কেটে নিতে হবে।

স্টেপ থ্রি, একটি পাত্রে ডিমের সাদা অংশ টা নিয়ে তার মধ্যে একে একে আদা রসুন বাটা,লঙ্কা গুঁড়ো ,সয়া সস,লেবুর রস,নুন,গরম মশলা গুঁড়ো ,ডিম আর কর্নফ্লাওয়ার মাখিয়ে সাদা তেলে পকোড়ার মত ভাজতে হবে।

স্টেপ ফোর, এরপর ফ্রাইং প্যানে অল্প সাদা তেল নিয়ে কালো সরষে,গোটা জিরে,কারিপাতা ,শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিতে হবে।

স্টেপ ফাইভ, একটু কাজুবাদাম দিতে হবে।একটি বাটিতে দই,কাশ্মিরী লঙ্কা গুঁড়ো ,নুন,অল্প চিনি,একটু ময়দা দিয়ে ভালোভাবে ফেটিয়ে প্যানে দিতে হবে।আঁচ বাড়িয়ে ডিমের পকোড়া গুলো দিতে হবে।

স্টেপ সিক্স, রেড চিলি সস দিয়ে নাড়াচাড়া করে গ্রেভি পকোড়ার সাথে মিশে শুকনো হয়ে গেলে নামিয়ে নিতে হবে।


শেষ চমকটিতেও শম্পা একই স্বাদের ছোঁয়া রেখে গেছে সমানভাবে। অনেক ধন্যবাদ জানাই বর্ধমানের শম্পা বিশ্বাসকে। আশা করি আগামী দিনেও এই ধরণের আরও অনেক রেসিপি উনি আমাদের সকল পাঠক বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। আজকের জলসা শেষ করার আগে আমি জয়িতা দে সরকার শব্দের মিছিলের সমগ্র পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের সকল পাঠক বন্ধুকে জানাই অনেক অনেক ধন্যবাদ। দেখা হবে আবার আগামী সংখ্যায় এই আশাতেই শেষ করলাম আজকের পর্বটি। সকলে সুস্থ থাকুন সঙ্গে থাকুন। 


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.