x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৩১, ২০১৭

রহিমা খাতুন

Unknown | আগস্ট ৩১, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
রহিমা খাতুন
 আটারো আর স্বাধীনতা 

আটারো মানে টগ বগ টগ,
রক্তের ঘোড়া ছোটে,
আটারো মানে শেলীর আগুন,
ভষ্মের তলে ফোটে।

আটারো মানে পরিবর্তন,
রদ বদলের পণ।
আটারো মানে সব কুয়েদের
উপড়ে ফেলার রণ।

আটারো মানে তেজের গাড়ি
বলের লাগাম কাটা।
আটারো মানে আরাম হারাম,
পোক্ত বুকের পাটা।

আটারো মানে ক্ষুদিরাম বোস,
প্রাণ নিয়ে যার খেলা।
আটারো মানে যখন খুশি,
কথা রাখবার মেলা।

আটারো মানে বলিষ্টতা,
চোখ মুখেতে আলো।
আটারো মানে শক্ত পাঁজর
ভালোর রূপে কালো।

আটারো মানে স্বাধীনতা,
উচ্চ শিরের দম।
আটারো মানে কোথায় রাজা?
আমি কিসে কম।

আটারোকে তাই তো কুর্নিশ করে,
তিরিশ হেমন্ত।
জাগিয়ে তোলো সব ভালোদের
যারা ঘুমন্ত।

তুমি না থাকলে জোর থাকে না
প্রবীণ দেহ মনে।
তোমাকে তাই থাকতেই হবে,
নবীন প্রতি ক্ষণে।

তুমি না থাকলে স্বাধীনতা,
রইতো স্বপন পাড়ে।
তুমি না থাকলে হীনমন্যতা,
অবিরাম কড়া নাড়ে।

তাই আটারো তুমি যাচিত।
তাই আটারো তুমি পূজিত।





Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.