x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

সোমবার, জুলাই ৩১, ২০১৭

লিপিকা বিশ্বাস সাহা

sobdermichil | জুলাই ৩১, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
লিপিকা বিশ্বাস সাহা
 মানুষ বাঁচে …! 

মানুষ বাঁচে ..কারো জন্য বাঁচে
কেউ বাঁচতে বলেছে বলে বাঁচে।
কেউ বাঁচতে হয় বলে বাঁচে।

পাগলটা অবশ্য
চাকরির বাজারে অবিক্রিত মাল হয়ে
চৌরাস্তায় দাঁড়িয়ে চেঁচিয়ে বাঁচে।

পাগলীটা আবার
মাতৃসদনের সামনের ফুটপাতে
বেড়ালের মতো বাচ্চা প্রসব করে বাঁচে।

কেউ জনঅরণ্যে
মাটি আঁকড়ে গাছ হয়ে
একা একা বাঁচে।

কেউ বিকেলের রোদ্দুর পিঠে নিয়ে
সময়ের ফাঁক গলে
 দিন গুনে গুনে বাঁচে।

কেউ ক্যানসার আক্রান্ত সমাজের
 আর কিচ্ছুটি হবেনা বলে
পেপারের প্রথম পাতার স্লোগান নিয়ে বাঁচে।

বাঁচা বাঁচা এ লড়াইয়ে
অভিমন্যুরা চক্রব্যুহে ধুকে
ধুকতে ধুকতে বাঁচে।

কারো কারো কাছে ধূপের গন্ধের চেয়ে
বারুদের গন্ধ মিষ্টিতাই বিপ্লবী হয়ে
শহিদমিনার আগলে মানুষ বাঁচে।

মানুষ বাঁচে ..
মৃত্যু আছে বলে
ঘুণেকাটা শরীর নিয়েও বাঁচে!


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.