x

আসন্ন সঙ্কলন


যারা নাকি অনন্তকাল মিছিলে হাঁটে, তাদের পা বলে আর বাকি কিছু নেই। নেই বলেই তো পালাতে পারেনা। পারেনা বলেই তারা মাটির কাছাকাছি। মাটি দ্যাখে, মাটি শোনে, গণনা করে মৃৎসুমারী। কেরলের মাটি কতটা কৃষ্ণগৌড়, বাংলার কতটা তুঁতে! কোন শ্মশানে ওরা পুঁতে পালালো কাটা মাসুদের লাশ, কোন গোরেতে ছাই হয়ে গেলো ব্রহ্মচারী বৃন্দাবন। কোথায় বৃষ্টি টা জরুরী এখন, কোথায় জলরাক্ষুসী গিলে খাচ্ছে দুধেগাভিনের ঢাউস পেট। মিছিলে হাঁটা বুর্বক মানুষ সেসবই দেখতে থাকে যেগুলো নাকি দেখা মানা, যেগুলো নাকি শোনা নিষেধ, যেগুলো নাকি বলা পাপ। দেশে পর্ণ ব্যন্ড হল মোটে এইতো ক'টা মাস, সত্য নিষিদ্ধ হয়েছে সেই সত্যযুগ থেকে। ভুখা মিছিল, নাঙ্গা মিছিল, শান্তি মিছিল, উগ্র মিছিল, ধর্ম মিছিল, ভেড়ুয়া মিছিল যাই করি না কেন এই জুলাইয়ের বর্ষা দেখতে দেখতে প্রেমিকের পুংবৃন্ত কিছুতেই আসবে না হে কবিতায়, কল্পনায়... আসতে পারে পৃথিবীর শেষতম মানুষগন্ধ নাকে লাগার ভালোলাগা। mail- submit@sobdermichil.com

ভালোবাসার  আষাঢ় শ্রাবণ

অতিথি সম্পাদনায়

সৌমিতা চট্টরাজ

সোমবার, জুলাই ৩১, ২০১৭

অভিজিৎ পাল

sobdermichil | জুলাই ৩১, ২০১৭ |
অভিজিৎ পাল
 অবয়ব 

১।

জীবন থেকে শরীর শব্দটা তুলে নিলে যতটুকু ভগ্নাংশ পড়ে থাকে, তা থেকে আমার দীর্ঘ পৃথিবীযাপনের হিসেব মেলাতে চেও না। আমি এখনও জটিল সব বিভাজ্য সংখ্যার সাথে যোগ করি আদিরসগুলোকে। আমার শৃঙ্খলহীন চাওয়া পাওয়ার অনেক হিসেব গতেবাঁধা জীবনের বীজগাণিতিক সূত্রে মিলে যায়। কখনও মিলতে চায়ও না। অযাচিত উপাখ্যান আঁকি। খসখস করে চারকোল চলে। ক্যানভাসের নীচ জমতে শুরু করে নিটোল রঙের আনন্দগান। আমি বুঁদ হয়ে যাই...

২।

সহজ কথায় মিশে থাকে সহজাত পাওয়ার এক-একটি আখ্যান। স্বচ্ছন্দ হতে শিখি। উগ্র নগরবাদ কর্পোরেট জগতের বাচিক শিল্প সাজায়। বহুমাত্রিক ছবি আঁকি। জানি রাজনৈতিক পরিচয় না থাকলে ছবিগুলো কখনই চিত্রশিল্প হতে পারে না। আমি ক্রমশ জটিল থেকে জটিলতর হয়ে উঠি। ভয় জমতে থাকে। জটিলতম খোলসের ভিতর গুটি পাকিয়ে বসে থাকি অসহ সময় মেপে। একদিন গুটি কাটবই। বের হয়ে আসব রঙিন পালকে...


৩।

নান্দনিক গতিচিহ্নের সাথে মিশিয়ে রাখি বিজন ভট্টাচার্যের নাটক। আমার একান্ত পরিচিত আত্মভাবনারা ঘুরে বেড়ায় দৃশ্যগহ্বের। রতিপত্র উত্থাপন করি ডেস্কে। টেবিলের ওপারে আমার পরম শ্রদ্ধেয় আমার ভাবনাগুলো নাকচ করতে করতে এক সময় নিজেই রঙ চড়ান। ছবি আঁকেন চিত্রপটে। হাততালি আর হাততালি। আমার প্রদত্ত হাততালির শব্দ তাঁর কর্ণবিদারক হয়ে ওঠে। আমি এখনও পুরোপুরি অনুগত মার্জার হতে পারিনি। আমার পূর্বপুরুষ আমার পূর্বনারী এখনও অজস্র ক্যালশিয়াম জোগান দিয়ে চলেছেন আরও দৃঢ় করতে চাওয়া মেরুদন্ডে...


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.