x

প্রকাশিত | ৯২ তম মিছিল

মূল্যায়ন অর্থাৎ ইংরেজিতে গালভরে আমরা যাকে বলি ইভ্যালুয়েশন।

মানব জীবনের প্রতিটি স্তরেই এই শব্দটি অবিচ্ছেদ্য এবং তার চলমান প্রক্রিয়া। আমরা জানি পাঠক্রম বা সমাজ প্রবাহিত শিক্ষা দীক্ষার মধ্য দিয়েই প্রতিটি মানুষের মধ্যেই গঠিত হতে থাকে বহুবিদ গুন, মেধা, বোধ বুদ্ধি, ব্যবহার, কর্মদক্ষতা ইত্যাদি। এর সামগ্রিক বিশ্লেষণ বা পর্যালোচনা থেকেই এক মানুষ অপর মানুষের প্রতি যে সিদ্ধান্তে বা বিশ্বাসে উপনীত হয়, তাই মূল্যায়ন।

স্বাভাবিক ভাবে, মানব জীবনে মূল্যায়নের এর প্রভাব অনস্বীকার্য। একে উপহাস, অবহেলা, বিদ্রুপ করা অর্থই - বিপরীত মানুষের ন্যায় নীতি কর্তব্য - কর্ম কে উপেক্ষা করা বা অবমূল্যায়ন করা। যা ভয়ঙ্কর। এবং এটাই ঘটেই চলেছে -

চলুন মিছিলে 🔴

শুক্রবার, জুন ৩০, ২০১৭

পলাশ কুমার পাল

sobdermichil | জুন ৩০, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
পলাশ কুমার পাল
অ-বন্ধুর আলগা বাতাস মনময়ূরীকে লিখছে চিঠি...

মনময়ূরী,

পরিচয়গুলো থেকে মাসরস ঝরে গেছে কি? বা ঝুলন্ত ছাদের পাশে সিঁড়িটাও বিলুপ্ত? আয়নার সামনে দাঁড়ালে তীরের ফলা ছুটে আসে এখন। তবে আমিই কি দোষী?

চোখে তীর বিঁধলে সব যেমন অন্ধকার হয়, তেমন কিছু অন্ধকার আজ। তবু মনে হয়, ধ্যানস্থ সম্পর্কের নীচ থেকে সরে গেছে পৃথিবী আর সামনে তুই হাসছিস একটা আলোকবিন্দুর মতো। ক্রমশ...

জানি না কী ভুল ছিল! জানি না আজও কী অপরাধ করেছি! তবু কেন সম্পর্কটা কঙ্কাল? কখনো তো বলিনি 'তোকে ভালোবাসি', কখনো তো বলিনি 'তোকে চাই'। তবু...

'সরে যাওয়া' বুঝি একেই বলে? দেখ, আমিও সরে গেছি কত। কালিহীন পেনের নিপ্ যেমন পাতার উপর শুয়ে নীরবে কবিতা আওড়ায়, তেমন।

গাড়ি-বাড়ি-শাড়ি'তে ভুলে তুইও কি সেই আরও পাঁচটা প্রেমী নারী? যোগাযোগের মাঝ থেকে সেতুটাকে সরিয়ে আজ বেশ সুখী জানি। তবু এই পাড়ের নগর না-হতে-চাওয়া গ্রামটা ভুলতে পারেনি আজও। তাই লিখে ফেলি চিঠি আবারও। যতবার ছিঁড়িস তুই, ঠিক ততবারই 'বন্ধু' লিখে ডাকবক্সে ফেলব নিজেকে...

পারলে, আবারও ছিঁড়িস!

ইতি -
অ-বন্ধু


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

�� পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ শব্দের মিছিলের সর্বশেষ আপডেট পেতে, ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.