x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৩, ২০১৭

রাহুল গাঙ্গুলী

sobdermichil | মার্চ ২৩, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
রাহুল গাঙ্গুলী
 ঈশ্বর ও চশমা 

১।

ঈশ্বরীয় কাঠ খুঁজতে গেলে
যতটুকু খড় পোড়াতে হয় : চশমায়
যৌন-গবেষনা প্রয়োজন।
কালো মেয়েটির পেটে এসেছে - রাতের স্তর।
এবারে : পদ্মমুখী দাঁড়িপাল্লার পালা।

২।

আমরা যারা রাতের বাওয়ালনামায় ভুগি
শরীরে লুকনো কাটাতার আছে।
ফেরীঘাট - সাইরেন - গরুর গাড়ি ও জল!
হয়তো দেখা যাবে এগুলো সবই চু-কিতকিত।
কোয়ান্টাম মতে : এখানেও বুনো-কলঙ্ক।

৩।

প্রায় ৪০টা রাতের পর : লাজুক স্লিপিং পিল।
সিলিঙে ঝোলে হিসেব - খেড়োর খাতা মসৃন
কামনায় ঢাক গুড়গুড়।চাঁদমালায় ভুষো শৈশব
অদ্ভুত লালা ঝরায়।পিনড্রপ সাইলেন্সারে.....
মালা-ডি : এক আনোখী গর্ভনিরোধক গোলিয়া।

৪।

শূন্য অবস্থানের ভারবাহিতায় : বিশ্রাম।
ম্যাজিক বলছে - সাবধান ঘোলা মাটি।
কিশোরী ত্বক : নীল-কালো বুটিকের আয়তন।
বাড়ছে না গাঢ় রস - কাঙাল মেলানকলিয়া
বরং ঘাই ছেড়ে : তেলাপিয়ার ঢেকুর উঠছে।

৫।

নাকে নথ - গলায় মহুল মাখার আগে
পড়ে থাকা বাতিল বরফের শামুক।প্রশ্ন....
নারী চোখে : টিয়াঠোঁটের চাঁদ আনমনে
সীমাবদ্ধ মাস্টারবেশন্ কেন?প্রয়োজনবোধ।
অপ্রকৃতস্থ নগর-বাউল পোড়ায় পিতল সীমানা।


৬।

যে ঈশ্বরকে ঘন হতে দেখি।
উথলানো চর্বি ও প্রোটিনে গাঢ় দানব।
কেউকেউ দানবেরও ঝুঁকি-প্রেম তোলে।
উজানি কাশছায়ায় খোয়াবনামার খোয়াইশ্
১নিঃসঙ্কোচ।মুহূর্তে জড়িয়ে ধরে ডালপালা...
তীখন্ বাঘনখ : আদমখোর।ভুলভুলাইয়া।ষড়যন্ত্র।

৭।

প্রারম্ভিক শাঁখ বাজানোর আগে
মৃত উৎসবের পুনরুত্থান।চশমায় ঈশ্বর
যে কোনো রঙিন : দুধ-সাদা মাঝের আতপে।
মেয়েটির নাভিতে শুয়েছে ইতর গোলাপ।
দড়িতে ঝোলানো চামড়ার ভাজ
নিখোজ হতেহতে ০-তর।
কাঠের চশমায় ঈশ্বরীয় গোলাপ ফুটেছে।





Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.