x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৭

মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর

sobdermichil | ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৭ | | মিছিলে স্বাগত
গরিবের সুখ
বাজারে বড় বড় টেংরা অার পুটি উঠেছে। তেল ওয়ালা গোস্তও অাছে। হাছেন ঘুরে ঘুরে দেখছে।  মেয়েটা টেংরা মাছের ডিম খাবে, রশিদ মোল্লার বাড়ীতে খেয়ে ছিল। বাবাকে বলে রেখেছে হাটে পাওয়া গেলে যেন অানে। বউ পোয়াতি, তেল ওয়ালা গোস্তের মিলানি খাবে, সম্ভার দিয়ে। বউটার কথাও মনে পরছে। কি জানি কখন কি হয়।

হাসেন ভাবে  - জীবনে একটা ইচ্ছা সে অাজ পুরন করবেই। তার পকেটে কাজ করে এক মাসের জমানো ৯০০  টাকা, কাপড় অার বউয়ের ঔষধ  কিনবে ভেবে, সদরে অাসা। সদরের হাট, ক্রেতার টাকার অভাব নাই, মাছের ঝাপি ঘিরে দাড়িয়ে ক্রেতা, বড় বড় টা কিনছে সবাই। হাসেন ভাবে দেড়ি করলে পাওয়া যাবেনা। সেও বেছে নেয় হাফ কেজি। দাম ৩৫০! ইস এতো গুলো টাকা ?  মেয়েটার হাসি মুখ ঠিক তখনি ভেসে উঠে । টাকা পরিশোধ করে স্বস্তির নিঃশ্বাস নেয় । মেয়ের ছোট মুখটা অাবার মনে পড়ে। মেয়ে খাচ্ছে এ ভাবতেই তার খুশিতে লাফাতে ইচ্ছে করে।

সিনার গোস্ত শেষ, ইস কেমন হলো?  বউটা কুঁচকুঁচে হাড় খুব খেতে পছন্দ করে। গত বড় ঈদে গাওয়ালী ভাগে দুইটি কুঁচকুঁচে হাড় পেয়ে কি খুশি। রান্না শেষে একটি নিজে অন্যটি স্বামীর পাতে তুলে দিয়ে বলে, খাইন মজা পাইবেন। হাসেন হাড়টি না খেয়ে বউয়ের পাতে তুলে দেয়। বউ কুঁচকুচি খায়, তার চোখে জল। হাছেন জিগায়,  কান্দোক্যা ?  বউ বলে খুশিতে। সে অানন্দে হাসেনের চোখেও পানি এসেছিল সে দিন।

ভাববার সময় নেই, হাসেন দেড়কেজি গোস্ত কিনে ফেলে ৪৭৫ টাকায় । কাপড় অার কেনা হয়না তার। ঔষধ কেনারও পয়সা  নেই।  বুকের কোথায়  যেন চিনচিনানী ব্যথা। হাটে অার মন বসে না তার। কখন বাড়ী যাবে সেই ভাবনা। জীবনে এমন মুর্হূত, এত খুশি পাওয়া  হয়নি। সে কি ভাবে হাটে থাকবো  -----?



Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.