x

প্রকাশিত

অর্জন আর বর্জনের দ্বিধা কাটিয়ে উঠতে পারেনি বলেই মানুষ সিদ্ধান্তের নিরিখে দোলাচলে।সেখানে প্রতিবাদও ভঙ্গুর।আর যথার্থ প্রতিবাদের থেকে উঠে আসে টায়ার পোড়ার গন্ধ।আঘাত প্রত্যাঘাতের মাঝখানে জন্মদাগও মুছে যায়।সংশোধনাগার থেকে ঠিকানার দূরত্ব ভাবেনি কেউ।ভাবেনি হাজার চুরাশির মা’র প্রয়াণ কোন কঠিন বাস্তবকে পর্যায়ক্রমিক প্রহসনে রূপান্তরিত করেছে।একটা চরিত্র কত বছর বেঁচে থাকে ?কলম যাকে চরিত্রের স্বীকৃতি দেয় তেমন পোস্টমর্টমের পড়ও আরও কয়েকযুগ বাঁচিয়ে রাখতে পারে কলমই। অভয়ারণ্যেও ঘেরাটোপ! সেই আপ্তবাক্য -

“মানুষ নিকটে গেলে প্রকৃত সারস উড়ে যায়” – স্বভাবতই প্রশ্ন ওঠে – প্রকৃত সারসই তাহলে উৎকৃষ্টতর।

“মানুষ নিকটে গেলে প্রকৃত সারস উড়ে যায়” – স্বভাবতই প্রশ্ন ওঠে – প্রকৃত সারসই তাহলে উৎকৃষ্টতর।

ভাববার সময় এসেছে। প্রতিবাদটা কোথা থেকে আসে—বোধ ?মস্তিষ্ক ?মুঠো? না বাহুবল?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

বিদিশা সরকার

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৬, ২০১৭

রাবেয়া রাহীম

sobdermichil | জানুয়ারী ২৬, ২০১৭ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
রাবেয়া রাহীম


 অসমাপ্ত কবিতা  


তোমার নামে লেখা কবিতাটি অসমাপ্তই রয়ে যায়
পাথুরে জমাট বাঁধা অনুভুতিগুলো হররোজ চিতায় পুড়ে
রোজ চেষ্টা করি সমাপ্তি রেখা টানার
কক্ষচ্যুত নিঃসঙ্গতায় ঠায় দাঁড়িয়ে
কালো রাত্রীতে বিমূর্ত প্রসববেদনায় ওষ্ঠাগত প্রাণ
তবুও সমাপ্ত হয়না কিছুতেই !!
তোমার নামে একটি নদিও আছে আমার
আরও আছে,
বৃক্ষরাজি দিয়ে বেষ্টিত একটি পাহাড়
প্রতিদিনকার না বলা কথাটি সঙ্গোপনে বুকে চেপে
আমার ভোর আমার সাঁঝে
নদীর তীরে বসে পাহাড় দেখি
শেষ কথা কবে হয়েছিল---
বর্ষবরণের রাতে?
নববর্ষের প্রাতে?
আনন্দে?
কষ্টে?
দেখা কি হয়েছিল তোমার সাথে---
মন মন্দিরে?
হৃদয়ের অতলে?
নিজের গভীরে?
তারপর--প্রতিদিন নব জন্মের পথ পরিক্রমায়
তোমাকে খুঁজে পাই আলোক বন্দী রুপে নিজের ভেতর!
বাতাসে ভেসে আসে তোমার কথা
মুগ্ধতায় বিবশ মন
হাজার সাজানো কথা ভুলে যাই বলতে তোমায়
অথচ কতকিছু ভেবে রাখি বলব বলে!
আমার না বলা কথাগুলো বুঝে নিও
জল টলমল নিরব চোখের ভাষায়।।



Comments
1 Comments

1 Reply so far - Add your comment

অচিন দরিয়া বলেছেন...

হাজার সাজানো কথা ভুলে যাই বলতে তোমায়
অথচ কতকিছু ভেবে রাখি বলব বলে!
আমার না বলা কথাগুলো বুঝে নিও
জল টলমল নিরব চোখের ভাষায়।।

অসাধারন লেখা !

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.