x

প্রকাশিত

গোটাকতক দলছুট মানুষ হাঁটতে হাঁটতে এসে পড়েছে একে অপরের সামনে। কেউ পূব কেউ পশ্চিম কেউ উত্তর কেউ দক্ষিণ... মাঝবরাবর চাঁদ বিস্কুট, বিস্কুটের চারপাশে লাল পিঁপড়ের পরিখা। এখন দলছুট এক একটা মানুষ এক হয়ে হাঁটছে চাঁদ বিস্কুটের দিকে। আলাদা আলাদা মানুষ এক হয়ে হাঁটছে সারিবদ্ধ পিঁপড়েদের বিরুদ্ধে। পথচলতি যে ক'জনেরই নজর কাড়ছে মিছিল তারাই মিছিল কে দেবে জ্বলজ্বলে দৃষ্টি। আগুন নেভার আগেই ঝিকিয়ে দেবে আঁচ... হাত পোহানোর দিন তো সেই কবেই গেল ঘুচে, যেটুকু যা আলো বাকী সবটুকু চোখে মেখে চাঁদ বিস্কুট চেখে চেখে খাক এই মিছিলের লোক। মানুষ বারুদ কিনতে পারে, কার্তুজ ফাটাতে পারে, বুলেট ছুঁড়তে পারে খালি আলো টুকু বেচতে পারেনা... এইসমস্ত না - বেচতে পারা সাধারণদের জন্যই মিছিলের সেপ্টেম্বর সংখ্যা... www.sobdermichil.com submit@sobdermichil.com

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

মৌমিতা ঘোষ

শুক্রবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬

আর্যতীর্থ

sobdermichil | ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬ |
আর্যতীর্থ


 আমরা ওরা 

বাইরেটা বেশ মসৃণ চকচকে,  অশোক চক্রে তেরঙা পতাকায়
ভেতর যদি খুঁড়ে দেখতে চাও, ভারত নামটা নেই কোনো জায়গায়।
যেটা আছে, সেটা আমরা আর ওরা। কি বলেন,  আমার দেশোয়ালি বন্ধুরা?
আমরা বলতে ধর্ম হতে পারে, আমরা তো পুব, ওরা পশ্চিমমুখো
ওই পাড়াতে ওই যে ওরা থাকে, ও মেয়ে তুমি সাবধানে খুব ঢুকো।
আমরা মানে জাতও অনেক সময়, ওদের আছে কয় শতাংশ কোটা?
আমাদেরও দু এক ছটাক দাও,  আন্দোলনে  'পিছড়ে' হতে ছোটা।
আমরা মানে বিহারি বা বং
আমরা মানে লাল বা সবুজ রং
আমরা মানে শুওর কিংবা গরু
আমরা হলে চাকরি হবে গুরু!
আমরা মানে ওরা কেন আছে?
আমরা মানে ওরা কেন বাঁচে?
আমরা ওরায় আগুন ফুলকি ছোটে, আমরা ওরায় বাড়ি জ্বলে ওঠে,
আমরা ওরায় গন্ধ পোড়া লাশের, আমরা ওরায় ফসল জ্বলে চাষের,
কাগজ পড়ে হঠাৎ বেজায় খুশী, কালকে ওদের লাশ পড়েছে বেশি,
আমরা ওরা সাপ নেউলের লড়াই, আমরা ওরায় সবাই স্বজন হারাই,
আমরা ওরায় উগ্রবাদী মাও, নাম লেখালো ছোটো ছেলেটাও....
আমরা ওরা এক দেশেতেই বাঁচি, আমরা ওরা আসুক কাছাকাছি
তেরঙাকে দেখিয়ে সবাই বলুক, এই এখানে আমরা সবাই আছি।


 কথা খোঁজা 

কথাগুলো মাঝে মাঝে দুম করে দেয় বনধ ডেকে 
ছন্দগুলো আমায় ফেলে মজা দেখে দূর থেকে
যতই চেঁচাই আয় ফিরে আয়,
বুড়ো আঙুল দেখায় আমায়
ছেঁদো কবির খেলো ডাকে পাত্তা আবার দিচ্ছে কে!

খালি খাতা বেজায় খেপে হাঁকে 'এসব হচ্ছে কি!
সাদা পাতায় ফুল বানিয়ে বাঁধবো তোমার পুচ্ছে কি?
যেখান থেকে  যেমন করে
আনো কিছু শব্দ ধরে,
গদ্যকথায় পচবো আমি, এমন তোমার ইচ্ছে কি?

কি আর করা, মগজ ঢুঁড়ে আলুকঝালুক শব্দ খুঁজি
কোনটুকু আর আছে বলো গরীব কবির কথার পুঁজি!
ইনিয়ে করি বাবা বাছা
আয় কথারা আমায় বাঁচা
তোরা যদি এমন করিস, কষ্ট আমার হয়না বুঝি?

কিছু কিছু সরল কথার মন গলে সেই তোষামোদে
ভরসা ফেরে এই অকবির শিক্ষানবিশ ছন্দবোধে
আলগা সেসব শব্দ নিয়ে
হালকা পদ্য দিই বানিয়ে
ভয়ে আছি আবার যদি কথারা যায় অবরোধে!


Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.