x

প্রকাশিত

​মহাকাল আর করোনাকাল পালতোলা নৌকায় চলেছে এনডেমিক থেকে এপিডেমিক হয়ে প্যানডেমিক বন্দরে। ওদিকে একাডেমিক জেটিতে অপেক্ষমান হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।​ ​দীর্ঘ সাতমাসের এ যাপন চিত্র মা দুর্গার চালচিত্রে স্থান পাবে কিনা জানি না ! তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানে-

​'চ'য়ে - চালা উড়ে গেছে আমফানে / চ'য়ে - কতদিন হাঁড়ি চড়েনি উনুনে / চ'য়ে - লক্ষ্মী হলো চঞ্চলা / চ'য়ে - ধর্ষিতা চাঁদমনির দেহ,রাতারাতি পুড়িয়ে ফেলা।

​হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষটি লালমার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ দেয় ক্যালেন্ডারের পাতায়, চোদ্দদিন যেন চোদ্দ বছর। হুটার বাজিয়ে শুনশান রাস্তায় ছুটে যায় পুলিশেরগাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স আর শববাহী অমর্ত্য রথ...। গঙ্গা দিয়ে বয়ে গেছে অনেকটা জল, 'পতিত পাবনী গঙ্গে' হয়েছেন অচ্ছুৎ!

এ কোন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা?

ছবিতে স্পর্শ করুন

শব্দের মিছিল

অতিথি সম্পাদনায়

সমীরণ চক্রবর্তী

রবিবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬

তাসমিন আফরোজ

sobdermichil | ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬ | | মাত্র সময় লাগবে লেখাটি পড়তে।
 তাসমিন আফরোজ


আমরা এবং ঈশ্বরের মিলমিশ 

অতঃপর ......
আমাদের সন্দেহের লেস্মাত্রার সীমা ছাড়িয়ে নিকষ দুপুর ,তোমাকে এনে দিলো আমার পদলতলের সীমান্তে ...সমস্থ পোষ্ট মর্ডেমের শেষাংকে আমরা পৈতৃক সূত্রে দখল করে নিলাম শব্দের চূড়ান্ত ঘর ।

আমদের দেয়া হল নির্বাসনে যুগান্তকারী অন্ধকারে ।আমরা উপবাসে সংরক্ষণ করি চেতনার অজস্র বাসনকোসন ...শত নাভিমূলের সৌরভে আমরা খুঁজে নেই বিড়ালী দৃষ্টি ...শকুন চোখে দেখে নেই আশেপাশের জঞ্জাল মৃত লাশের স্তুপ।..আমাদের আবাসন গড়ে কবর বাড়িতে ।
রোদের বাক্য ,বৃষ্টির সূর ফেলে এসেছি দোচালা ঘরে ।আমাদের দোলনা এখন নিস্তব্ধ শাখায় শোকাহত মনে ...আমাদের খাতাগুলো তালাবন্ধ করে রেখেছে বিক্ষুধ জনতা ...আমদের কলম চুষে খায় সফল ধূর্ততা ...

আমরা ভালো আছি বেশ ...দরদামে বিক্রি করে দিয়েছি নিজের সত্ত্বা খাদক ঈশ্বরের কাছে ...ঈশ্বর হাসেন আমরা হাসি ....হাসে নিস্তব্ধ আত্মা.........।






Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.