x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

বুধবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬

অনন্যা ব্যানার্জি

sobdermichil | ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬ | | মিছিলে স্বাগত
অনন্যা ব্যানার্জি




নবান্নের রেশ রেখে ধীরে ধীরে বিদায় নিয়েছে হেমন্ত, গ্রামবাংলায় আজ নতুন ধানের ঘ্রাণ মাখা শীতের কুয়াশা সকাল, শহরে যদিও গরম চায়ের চুমুকে শীতের আলতো ছোঁয়া। গুটি গুটি পায়ে হাজির পৌষ - পিঠে পুলি, নলেন গুড়, চিড়িয়াখানা, শীতের রোদ হাজারো স্বাদে এবং রঙীন মেলায়। শুধু বাঙালীয়ানা নয়, আমরা এই পৌষেই মুখিয়ে থাকি খ্রীসমাস এর জন্য এছাড়া বর্ষবরণ তো আছেই। 

খ্রীসমাসের কেক, নতুন বছরের আনন্দোৎসব, শীতের রোদে চড়াইভাতি আনন্দের ছাপ ছড়িয়ে থাকে সর্বত্র । ইংরাজী বছর শেষের এই মুহূর্তগুলোই নতুন বছরের চালিকাশক্তি হয়ে ওঠে, আমরাও এ আনন্দের প্রতিটি কণাকে সঞ্চয় করে রাখি মনের মনিকোঠায় । পৌষ কিন্তু আমাদের বাঙালীদের কাছে আরও এক বিশেষ কারণে উল্লেখযোগ্য। তা হল শান্তিনিকেতনের পৌষমেলা । বাঙালীর কৃষ্টিমেলা এক বিশেষ স্থান অধিকার করে আছে । প্রতিবছর ৭ ই পৌষ শান্তিনিকেতনের এই মেলা আমাদের টেনে নিয়ে যায় মাটির টানে । আর এই মেলার বিশেষ আকর্ষন অন্তত আমার কাছে বাঙলার লোকগীতি ,বাঙলার বাউলগান । একতারার ওই সুরের অমোঘ টান । বাউল সাধনা বড় কঠিন সাধনা অথচ কত সহজিয়া । রবীন্দ্রনাথ নিজেও বাউল সঙ্গীতের একনিষ্ঠ ভক্ত ছিলেন এছাড়াও তিনি বাউল চর্চাও করেছেন । এর প্রভাব পড়েছে ওনার গানে । তাঁর রচিত বহু গানেই আমরা মেঠো পথের গন্ধ পাই, মাটির সুর ছুঁয়ে যায় আমাদের মন । এই সংখ্যায় এই মাটির সুর আমাদের উপজীব্য । মাটির সুর শুনতে শুনতে বাউলদের সাথে পা মিলিয়ে মেঠো পথের বাঁকে আমরাও না হয় হারিয়ে যাই । শান্তিনিকেতনের ভুবন ডাঙার মাঠ পেরিয়ে খোয়াইয়ের পার ধরে পায়ে পায়ে পৌঁছে যাই কোপাইয়ের চরে । বীরভূমের লাল মাটি মেখে পেরিয়ে যাই "গ্রাম ছাড়া ওই রাঙা মাটির পথ " । এই সংকলনে বেছে নিয়েছি বাংলার লোকগীতিকে ,বাংলার বাউল গান কে । 

শব্দের মিছিলের প্রত্যেক পাঠক পাঠিকা ও শুভানুধ্যায়ীকে মেরী খ্রীসমাস ও নতুন বছর ২০১৭ -র অনেক অনেক শুভেচ্ছা জানিয়ে আমি অনন্যা শেষ করছি আপাতত এখানেই । দেখা হবে নতুন বছরে নতুন প্রভাতে । সাথে থাকুন পাশে থাকুন শব্দের মিছিলে । 

মিলন হবে কত দিনে ...   



খাঁচার ভিতর অচিন পাখি ...  


তোমায় হৃদ মাঝারে রাখবো ...  


গোলেমালে গোলেমালে পিরিত ...  


একদিন মাটির ভিতরে হবে ঘর রে ...  


ওরে দিন থাকিতে ...  


জাত গেলো বলে ...  


নবী না চিনলে সে কি খোদার ...  


মানুষ ভজলে সোনার ...  






Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.