x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৬

পলাশ কুমার পাল

sobdermichil | সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৬ | | | মিছিলে স্বাগত
পলাশ কুমার পাল

ইনবক্স

ইনবক্সটা বড্ড খুশির
ইনবক্সটা বড্ড নেশার;
এখন কথার ঘুড়ি সবই
ইনবক্সেই করে বিহার।

মেলার মতো সেথায় কথা
হরেক দোকান হরেক মাল;
কেউ সেথা তাঁবু খাটায়
কারুর প্লেটে নুন-টক্-ঝাল।
কেউ কেনে পুতুল-গাড়ি
কেউ কেনে নিষিদ্ধ বই;
কেউ ঘোরে নাগর দোলায়
কেউ হুল্লোর হৈচৈ।

ইনবক্সে নিম্নচাপ আর
ইনবক্সেই উচ্চচাপ;
বুকের ভিতর উষ্ণায়ন
মন পোড়ায় তারই তাপ।
'সম্পর্ক' খেলা সেথায়
ভীষণরকম জনপ্রিয়;
কবিতা নয় ঝুমুর সেথা
অধিকরকম গ্রহণীয়।
বান্ধব সেথা রিকেট রুগী
স্বার্থচাটনী আসল স্বাদ;
পরকীয়াতে টইটুম্বুর
অযুক্তির কাঁধেতে হাত।

অন্তর্বাসটা সেথায় খোলা
যৌনতার ভীষণ ঝাঁঝ;
নগ্নদেহে সকলে হাসে
ইনবক্সের উপন্যাস।
আড়াল শুধু ভাঁড়ামি
ইনবক্সটাই খোলা মাঠ;
পশুর গুণে মানুষ সেথা
বেচাকেনার শিল্প-হাট।

কেউ বা আবার বোবা বেশে
ইনবক্সটা ডিলিট করে;
ইনবক্স তবু সংখ্যাগুরু
সরকারটা তাদের ঘরে।



হরেক বোলের একটিই সুর

ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্ ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্
বাজল মহালয়ার সুর
আয় রে সব ছেলের দল
মণ্ডপেতে সাজছে ঠাকুর
ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্ ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্

তাক্ দুম্ তাক্ দুম্ তাক্
বাজবে রে ঐ পুজোর ঢাক
দুঃখ সকল মুছে দিয়ে
পড়ব সবে নতুন পোশাক
তাক্ দুম্ তাক্ দুম্ তাক্

তাতা তাতা থৈ থৈ
দুগ্গা মা সাজবে ঐ
তুলে রাখব মোদের বই
পুজো দেখতে যাব রে সই
তাতা তাতা থৈ থৈ

তা ধিন্ তা ধিন্ ধিন্
মনের মাঝে বাজবে বীণ
ধুনুচিতে নাচের রিদিম
আড্ডা খেলায় কাটবে দিন
তা ধিন্ তা ধিন্ ধিন্।

তা ধিন্ তা ধিন্ ধিন্
ও ছেলেরা ও মেয়েরা
আসছে আবার খুশির দিন
আকাশেতে উড়ছে ঘুড়ি
এই ছড়ার মতোই রঙীন
তা ধিন্ তা ধিন্ ধিন্।

তাতা তাতা থৈ থৈ
মণ্ডপেতে যাব রে সবে
করব গপ্প আর হৈচৈ
মণ্ডা-মিঠাইয়ে ভরবে পেট
তাতা তাতা থৈ থৈ।

তাক্ দুম্ তাক্ দুম্ তাক্
সব দিন যদি এমন হত
বইহীন পুজোর ঢাক
সারাবছরই ফুটত কাশ
সবাই মিলে বাজাতাম
তাক্ দুম্ তাক্ দুম্ তাক্

ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্ ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্
আয় রে আয় সবাই মিলি
মুছে দিয়ে বিভেদ-বেসুর
মাকে শোনাই সেই অনুরোধ
হরেক বোলের একটিই সুর
ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্ ঢ্যাঙ কুড়াকুড়্




Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.