x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

সোমবার, আগস্ট ১৫, ২০১৬

সায়ন্ন্যা দাশদত্ত

sobdermichil | আগস্ট ১৫, ২০১৬ | | মিছিলে স্বাগত
dasgupta


একটানা উড়ছে তিনরং পতাকাটা। ওই ভেঁপুদের কার্ণিশে লেগে আছে পেটকাটির লেজ। মাঞ্জাটা ধার হয়নি ভালো। প্যাঁচ লাগতেই হাঁচড়পাঁচড় ; আর নেই আকাশে। সেই যে নেমে আসছে গোত্তা খেয়ে ; তারপর দুপুর হয়ে এলো। প্যাডেলে চাপ দিতেই চাকা গড়ালো। মোড়ের মাথায় তিনটে বক্স ! গমগমিয়ে গাইছে। জরা আঁখ মে ভর লে পানি , জো শহীদ হুয়ে হে উনকি . . .আচারের পাতাটা চাটতে চাটতে ভেঁপুজিজ্ঞেস করল

- শহীদ কাকে বলে রে ? 
- যারা মরে গেছে । 
- দাদুর মতো ? 
- না রে ! ওই যে হেডস্যারের ঘরে যাদের ছবি থাকে।
- ওদের ছবি থাকে কেন বলতো ? 
- ওদের কে আজকের দিনে মালা দিতে হয়। গানটান গাইতে হয় । স্কুলে দেখলি না ! 
- ছবির ভেতর গান শোনা যায় ? 
- কেন তোদের গোপাল তো ছবি থেকেই লাড্ডু খায়। খায়না ? 
- কই আর খায় ? 
- আরে এসব কি দেখা যায় ? ধরে নিতে হয়। এমনিই ! 
- হুম্ ! এমনি এমনিই কেমন স্কুল ছুটি বল্ ? ইস্কুলে কালোজাম খাইয়েছে। গান হলো ! রোজই এরকম হলে ? 
- রোজরোজ কে মরবে ? ধুস ! 
- হাসপাতালে তো মরে রে ! দেখিস না মিত্রখালে কতো আগুন। ধোঁয়া উঠছে তো উঠছেই। 
- ওরে ওমনি মরলে হয়না। দেশের জন্যে মরতে হয় ! 
- দেশের জন্যে ? 
- হুঁ। 
- ভারতবর্ষ আমাদের দেশ। ভারতবর্ষ নদীমাতৃক দেশ। ভারতবর্ষ স্বাধীন দেশ। হিমালয় ভারতবর্ষের . . . ! 
- থাম থাম ! ওসব জানি ! 
- তো সেই ভারতবর্ষের জন্যে আবার মরবে কেন ? 
- কে জানে বাবা ! ভালবাসলে বোধয় মরেটরে ! সেদিন দাদা বলছিল মুন্নির গায়ে কেউ হাত দিলে জান দিয়ে দেবো। ওইরকমই হবে ! 

- হুম্ ! ভালবাসা ! সিনেমার মতো ! কিন্ত দেশ মানে তো নদী, জঙ্গল, পাহাড়টাহাড় . . . . ওইসব হয় ? 

ভেঁপু সাইকেলে প্যাডেল মারে। ঠনঠনিয়ে চাকা ঘোরে। দুপুরটা এখন বিকেল বিকেল হয়েছে। টেম্পোচকে সুভাষ বসু, ক্ষুদিরামের গলায় মালা। পায়ের কাছে আবির রংপদ্ম। পতাকার গায়ে হাতে ব্যথা। চুপ করে বিকেল দেখছে একাই। ধেনো মাতাল বাংলা খেয়ে একাই নাচছে । বক্সে ভালবাসার গান বাজছে . . . জরা ইয়াদ করো কুরবানী ! স্বাধীনতা বুড়ো হয়েছে। পতাকা আর বইতে পারেনা আজকাল।



Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.