x

প্রকাশিত | ৯৪ তম মিছিল

কান টানলেই যেমন মাথা আসে, তেমন ভাষার প্রসঙ্গ এলেই মানুষের মুখের ভাষার দৈনন্দিন ব্যবহারের কথাও মনে পড়ে যায়, বিশেষত আজকের দিনে। ভাষা দিবস মানেই শুধু মাতৃভাষা নিয়ে আবেগবিহ্বল হয়ে থাকার দিন বুঝি আজ আর নেই!

কেননা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যাঁরা মাথায় বসে আছেন, বিশেষত যাঁরা রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্ষমতাভােগী এবং লােভী, তাঁদের মুখের ভাষা এবং তার প্রয়ােগ আজ ঠিক কতটা শিক্ষণীয় এবং গ্রহণীয় সেটা শুধু ভাবার নয়, রীতিমতো শঙ্কার এবং সঙ্কটের।

সবই কি তবে মহৎ ভাবনা, অনুপ্রেরণার জোয়ার? নাকি রাজনৈতিক কারবারিরা 'সুভাষিত' শ্রবণাতীত বয়ানে নিজেদের অক্ষমতার মদমত্ত প্রকাশ করছেন? সাধারণ ছাপােষা মানুষ বিস্ফারিত চিত্তে এই ভাষাসন্ত্রাস,এই ভাষাধর্ষণ দেখতে শুনতে ক্লান্ত। এর থেকে উত্তরণের উপায় এখনও অবধি কোনাে ভাষা দিবস দেখাতে পারেনি। এবারের ভাষা দিবসের কাছেও কি সেই উপায় আছে? নাকি এই খেলা হবে, চলবে ... মেধাহীন গাধাদের দৌলতে?

চলুন মিছিলে 🔴

মঙ্গলবার, আগস্ট ২৩, ২০১৬

অনন্যা ব্যানার্জি

sobdermichil | আগস্ট ২৩, ২০১৬ | | মিছিলে স্বাগত
anu

এ সত্যিই খুবই আনন্দের সংবাদ। এক পা এক পা করে পথ চলা শব্দের মিছিল আজ পঞ্চাশ তম সঙ্কলনে । এই পথচলায় শরিক হতে পেরে সত্যি আনন্দিত এবং গর্বিত ।

আগস্ট। এই আগস্টেই বিয়াল্লিশের ভারতছাড়ো আন্দোলন আর ঠিক তার এক বছর আগে আগস্টেই রবীন্দ্রনাথের চলে যাওয়া , এই মাস কবি সুকান্তের জন্ম মাস, তেমনি এই মাস স্বাধীনতার। " স্বাধীনতা" এই শব্দটি নিয়ে বর্তমান সমাজে বিতর্ক অবাধ । প্রশ্ন যে স্বাধীনতার জন্য এত আত্মদান সেই সব মহামানবদের, যে স্বাধীনতার জন্য এত রক্তপাত, অত্যাচারী ইংরেজদের গুলির সামনে বুক চিতিয়ে হাসতে হাসতে মৃত্যুবরণ করা এত প্রাণের, তার মান মর্যাদা আমরা কতটুকু রাখতে পেরেছি। সত্যিই কি আমরা যথাযথ সম্মান দিতে পেরেছি এত আত্মদানের ? এত রক্তের বিনিময়ে লব্ধ স্বাধীনতার মূল্য কি দিতে পেরেছি ? 

এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে বিতর্ক অবাধ, যে সমাজে প্রাণের মূল্যই নগণ্য সেখানে স্বাধীনতার মূল্যায়ন করতে যাওয়া বৃথা । বরং আসুন আমরা শ্রদ্ধাবনত চিত্তে স্মরণ করি সেইসব মহান প্রাণের অধীশ্বরদের যাঁদের আত্মত্যাগেই এই বহুমূল্য স্বাধীনতা । ১৭৫৭ খ্রীষ্টাব্দের ২৩ শে জুন পলাশীর প্রান্তরে নবাব সিরাজোদ্দৌলার পরাজয়ের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতার সূর্য শেষবারের মত অস্ত গিয়েছিলো সেখানে আরও কালো আঁধার ঘনীভূত হয়েছে ১৮৫৭ খ্রীষ্টাব্দের সিপাহী বিদ্রোহের পর, দেশবাসীর ওপর নেমে এসেছে অন্ধকার কালো রাত । নির্মম অত্যাচারে ক্ষত বিক্ষত হয়েছে দেশমাতৃকার সন্তানেরা । আঘাতের নিষ্ঠুরতা যত বেড়েছে ততই তীব্র হয়েছে প্রতিবাদ, রক্তক্ষয়ী সংগ্রামে লাল হয়েছে মাটি, একের পর এক মৃত্যুতে শূন্য হয়েছে দেশমায়ের কোল । বহু প্রাণ বহু রক্তের বিনিময়ে শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয় ইংরেজরা দেশ ছাড়তে যদিও দেশ ছাড়ার আগে তারা দ্বেষের বীজ পুঁতে দিয়ে যায় বহু বীর সন্তানদের প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত এই স্বাধীনতার শিকড়ে। যার ফল আজকের সামাজিক পরিস্থিতি । 

তবুও এই স্বাধীনতা আমাদের স্বপ্ন ,আমাদের গন্তব্য, আমাদের সেরা প্রাপ্তি । যাঁদের রক্তের বিনিময়ে আমাদের এই স্বাধীনতা সেই সমস্ত মহাপ্রাণকে বিনম্র চিত্তে শ্রদ্ধা জানিয়ে আমি অনন্যা সাজিয়েছি এবারের গানঘর স্বদেশ পর্যায়ের কিছু গান দিয়ে । আগামী সংখ্যায় আবারও নতুন কিছু গান সাজাবো আপনাদের অপেক্ষায় ... 



বল বল বল সবে ...  


ও আমার দেশের মাটি ...  


সার্থক জনম আমার ...  


মুক্তির মন্দির সোপানো ...  


আগুন জ্বালো ...  


দুর্গম গিরি ...  


এবার তোর মরা গাঙে ...  


Aye Mere Watan Ke ...  


এমন দেশটি কোথাও তুমি ...  






Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

পাঠক পড়ছেন

 

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

■ আপডেট পেতে,পেজটি লাইক করুন।
সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ | আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা
Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Blogger দ্বারা পরিচালিত.