Thursday, December 28, 2017

সায়ন্ন্যা দাশদত্ত

sobdermichil | December 28, 2017 |
আরেকটি যেকোন ধর্ষণ
খনো শেখেনি সে । একটা শরীর কিভাবে কান্না হয়ে যায় আর কতগুলো মুখ কেমন করে ধারালো ক্ষিদে সামনে ধরে নিজেদের জাহির করতে পারে সেই দুর্গন্ধ নরকের ভেতর আগে কখনো হেঁটে আসেনি সে । এই সবে আলো । একটু ভোরের মতো সে কয়েকটা প্রশ্নমালা ধরেছে । প্রতিটি উত্তর মিলিয়ে দিতে পেরে সে পাখি হয়ে যাচ্ছে । আরো আকাশ ,আরো জানলার পাশ ঘেঁষে গড়িয়ে গেল বাবার কেনা প্লাস্টিকের সাইকেল । সে বেল বাজায় । মোড়ের পর মোড় ঘুরতে ঘুরতে কত বন্ধু হচ্ছে তার । সবাই তাকে আদর করতে চাইছে । কিছু আদর কুহকের মতো লজেন্স কিনে দিচ্ছে । কেউ কেউ শৈশবের জানু আঁচড়ে বলছে 'এইবয়সেই কি গড়ন !'

          গড়নের ভেতর কতখানি কান্না বড় হয় সে খবরটা মাও বলেনি তখন। একটা ফুল অথবা কুঁড়ির মতন করে তাকে গণিতের কথা , দেশের কথা , বড়বড় মনীষীদের কথা পড়িয়ে শোনায় বাবা । সবাই বলে বড় হয়ে সে মস্ত মানুষ হবে !



            মস্ত যদিও কখনোই হবেনা সে । মস্ত হওয়ার আগেই সে জানতে পারবে ক্ষিদে ডিঙ্গিয়ে কোথাও কিচ্ছু নেই । ঝিম দুপুরে কিনে দেয়া কাঠি লজেন্স আর দুটাকার হজমিগুলির সাথে কখন যেন নষ্ট হয়েছে সে । মা ,বাবা খুব কেঁদেছে সারারাত । হিসি করতে গিয়ে ব্যথা পেয়েছে সে । হাগু করতেও তাই । কি ঢুকিয়ে দিয়েছিল ওরা ? কি ঢুকিয়ে দেওয়া হয় ?কতটা লিঙ্গ ,কতখানি বীর্য আর কতরকম স্বমেহনের পরে প্রকৃত তৃপ্তি হয় খুনের রুগীর ?

           আসলে জ্বর ।ভীষণ কিছু অসুখ তুলছি ঘরে । এই উঠোন ,অকারণ কমে আসা শীত ,মহানগরীর দীর্ণ কিছু যীশু তাদের জন্মের পরপর রাতেই বুঝতে শিখছে শরীর কত আগে ....বাবা ,মা ,মাসি ,কাকু ,জেঠু ,দাদা ,স্যার ,ড্রাইভার কাকু , আঁকার খাতা ,একলা ইউরিনাল , আইসক্রিম গাড়ি ,দুটো পুরুষ্ট আঙ্গুল ,একটা পেনসিল , নখের আঁচড় ,ছড়ার বই ,রূপকথার রাজা .....সমস্তকিছু মিথ্যে করে দিয়ে যীশুটি  এখন শরীর চিনতে শিখছে  !






Comments
0 Comments

-

সুচিন্তিত মতামত দিন

 

অডিও / ভিডিও

Search This Blog

Support : FACEBOOK PAGE.

সার্বিক অলঙ্করণে : প্রিয়দীপ ,আহ্বায়ক : দেবজিত সাহা

Website Published and © by sobdermichil.com

Proudly Hosting by google

Powered by Blogger.